সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়া উন্নত করতে ৫ পদক্ষেপ

সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়া উন্নত করতে ৫ পদক্ষেপ

সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়া উন্নত করতে ৫ পদক্ষেপ

সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়া উন্নত করতে ৫ পদক্ষেপ

আচ্ছা আমি কি টাকা জমিয়ে একটি আইফোন কিনব, না এখন যে টাকা তা দিয়ে একটি ল্যাপটপ কিনব? আচ্ছা আমি কি গ্রাফিক ডিজাইন শিখব না ওয়েব ডিজাইন শিখব? এই রকম নানা প্রশ্নে আমরা অনেকই সিদ্ধান্ত হীনতায় ভুগে থাকি। ছোট বা বড় নানা বিষয়ে আমরা অনেক সময় দ্বিধা দন্দের মধ্যে থাকি।

সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা একটি গুরুত্বপূর্ণ দক্ষতা। কেননা সিদ্ধান্ত ভালো হলে তার ফলাফল ভালো হয় আর সিদ্ধান্ত খারাপ হলে এর ফলাফলও খারাপ হয়।

আজকের এই আর্টিকেলে আমি আপনার সাথে সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়া উন্নত করতে ৫টি পদক্ষেপ তুলে ধরার ইচ্ছা প্রকাশ করছি। এছাড়া আশা করছি যে, এই ৫টি সিদ্ধান্ত গ্রহণের পদক্ষেপ আপনাকে আপনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়াকে আরো সহজ করবে।

১। লাভ লসের হিসাব করুন

আপনি যখন একটি সিন্ধান্ত নিতে যাবেন তার আগে লাভ ও লসের হিসাব করুন। যেই সিন্ধান্ত আপনি নিতে চাচ্ছেন তা নিলে কি লাভ হবে এবং সেই সিন্ধান্তটি না নিলে কি ক্ষতি হতে পারে তার হিসাব করুন। সম্ভাব্য নেগেটিভ ও পজিটিভ দুই দৃষ্টিকোন থেকেই আপনাকে চিন্তা করতে হবে।

২। অপশন কমিয়ে আনুন

সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়া উন্নত করতে আপনাকে আপনার পছন্দ কমিয়ে আনতে হবে। যখন আমাদের কাছে অনেকগুলো অপশন থাকবে তখন আমরা তত বেশী সিদ্ধান্ত হীনতায় ভুগব।

যেমন ধরুন আপনি একটি মোবাইল ফোন কিনতে চাচ্ছেন। আপনার বাজেট বিশ হাজার টাকা। এখন আপনি যদি মোবাইলের ফিচার ও ব্র্যান্ড নির্বাচন না করেন তবে আপনি মহা সমস্যায় পরবেন। কেননা এই বাজেটে বাজারে কম করে হলেও ৩০টির বেশী মোবাইল ফোন রয়েছে।  যখন আপনি এই ৩০টি ফোন নিয়ে ঘাটা ঘাটি করবেন তখন আপনি অনেক দ্বিধা দন্দের মধ্যে পরে যাবেন।

তাই যে কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণের পূর্বে আপনার জন্য থাকা অপশন গুলো কমিয়ে নিন, এতে আপনি একটি ভালো ও কার্যকারী সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন।

৩। লক্ষে অটুট থাকুন

সাধারনত যে কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় একটি লক্ষ্যকে কেন্দ্র করে। এই লক্ষ্য বাস্তবায়ন করার জন্য হয়ত আপনাকে ধাপে ধাপে নানা ধরনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হবে। আপনি যেই সিদ্ধান্ত গ্রহন করুন না কেন আপনাকে আপনার লক্ষে পৌঁছাতে হবে।

পড়ুন – আত্মবিশ্বাস বাড়াতে পারেন এই ৬ উপায়ে

৪। অতিরিক্ত চিন্তা করবেন না

এই পরামর্শটি শুনতে খুব সহজ মনে হতে পারে কিন্তু এটি একটি খুবই ভাল পরামর্শ। এই অতিরিক্ত চিন্তা এড়াতে আপনি একটি লিস্ট করতে পারেন।

আপনার লিস্টে আপনার লক্ষ্য কি এবং সেই লক্ষ অর্জনের ধাপগুলো কি তা লিখে ফেলুন। যখন আপনার হাতে লিস্ট থাকবে তখন আপনি বুজতে পারবেন আপনি কোথায় অবস্থান করছেন এবং পরবর্তী ধাপ কি, যা আপনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়াকে আরো সহজ করবে।

৫। সময় সীমা নির্ধারণ করুন

সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। যখনই আপনার কোন একটি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার দরকার হবে তখনই একটি সময় সীমা নিজেকে বেঁধে দিন। এতে আপনি দ্রুত ও কার্যকারভাবে ডিসিশনটি নিতে পারবেন।   

– কে এম চিশতি সিয়াম ইউটিউব লিঙ্ক