যে ১০টি ব্যবসা ছোট শহরে শুরু করে লাভবান হতে পারেন

আপনার অবস্থান যদি একটি ছোট শহরে হয়ে থাকে এবং আপনি যদি আপনার ছোট শহরে একটি একক ও সফল ব্যবসা শুরু করতে আগ্রহী হন তাহলে আপনি চাপ নিবেন না। আমরা আপনাকে আত্মবিশ্বাসের সাথে একটি ব্যবসা শুরু করার অনুপ্রেরণা প্রদান করব। তার জন্য আমরা আপনাকে ছোট শহরে শুরু করা যায় এমন কয়েকটি ব্যবসার ধারণা দেব। যাতে আপনি সহজেই ব্যবসাটি স্থাপন করতে পারেন। নিচে তার তালিকা দেওয়া হল।

১০টি ব্যবসা ছোট শহরে শুরু করে লাভবান

১০টি ব্যবসা ছোট শহরে শুরু করে লাভবান

কফি শপ

আপনি যদি একটি কফি শপ ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে আপনি আপনার আশেপাশের কফি শপের কথা মাথায় রাখবেন না। আপনার শহরে প্রচুর কফি শপ থাকলেও আপনি হতাশ হবেন না। কারণ আপনি একটি নিখুঁত পরিকল্পনা নিয়ে সহজেই এই ব্যবসাটি শুরু করতে পারেন। তাছাড়া আপনি আপনার সুবিধা মত সময় ঠিক করে আপনার কফি শপটি খুলতে পারেন। তবে খেয়াল রাখবেন অতিরিক্ত সাজসজ্জা বা আসবাবপত্র আপনার কফি শপের সৌন্দর্য্য নষ্ট করতে পারে। আপনি আপনার কফি শপে একটি প্রাকৃতিক পরিবেশের সৃষ্টি করে সহজেই গ্রাহকদের দৃষ্টি আর্কষণ করতে পারেন। কফির দোকান শুরু করার আগে প্রকল্প প্রস্তাবনায় বিনিয়োগ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হবে।

বুটিকস পোশাক

ছোট শহর গুলোতে প্রাথমিক ভাবে কেনাকাটা করার যথেষ্ট অভাব রয়েছে। বড় বড় শপিং মলে তাদের কেনাকাটা করা একেবারেই অসম্ভব ব্যাপার হয়ে পরেছে। তাই আপনি তাদের কথা চিন্তা করে আপনার ছোট শহরে পোশাক খাতে বিনিয়োগের ব্যবস্থা করতে পারেন। প্রাপ্ত বয়স্ক থেকে শুরু করে সকল বয়সীদের পোশাকের সমাহার ঘুটয়ে আপনি একটি বুটিকস পোশাক বিক্রয় কেন্দ্র স্থাপন করতে পারেন। গুনগত সেবা সেবা প্রদান করতে পারলে আপনি আপনার শহরে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পারেন।

বেকারী

নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় পন্য গুলোর মধ্যে বেকারী পন্য অন্যতম। আমরা আমাদের সকালের নাস্তা হতে শুরু করে আমাদের ছোট মোনামণিদের জন্মদিনেও আমরা বেকারী পন্য ব্যবহার করে থাকি। শহর ছোট কিংবা বড় হোক সব জায়গাতেই বেকারীর পন্য অতীব জরুরী। যদিও একটি বেকারী নির্মাণ করা বা পরিচালনা করা অত্যন্ত কঠিন কাজতবুও আপনি আপনার ছোট শহরের বাসিন্দাদের কথা মাথায় রেখে সেবা ভিত্তিক এই ব্যবসাটি শুরু করতে পারেন। আপনি আপনার পন্যের গুনগত মান ঠিক রেখে ও মানসম্মত পরিবেশে পন্য গুলো তৈরী করে জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পারেন।

মুদি দোকান

আপনার ছোট শহরে মুদি দোকান খোলতে পারেন যা নি:সন্দেহে একটি ভাল ব্যবসার ধারণা। আপনি এই সেবাটির মাধ্যমে আপনার শহরের সকল বাসিন্দাদের চাহিদা পূরণে সক্ষম হবেন। এজন্য আপনাকে তাদের সুযোগ সুবিধা বা পছন্দ অপছন্দর কথাও চিন্তা করতে হবে। আপনার শহরে আরও মুদি দোকান থাকতে পারে। আর এ জন্য আপনি হতাশ হবেন না। আপনি সেরা পণ্য গুলো বিক্রি করে আপনার দোকানটিকে সাফল করে তুলতে পারেন।

বাগান সেবা

যেহেতু ছোট শহর গুলো প্রায় গ্রামের মতোই সেহেতু এখানে বাগান নির্মাণ করার প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে। ছোট শহরের বাসিন্দাদের কাছে বাগানের অনেক। আপনি চাইলে আগ্রহী গ্রাহকদেরকে সহজেই এই সেবাটি প্রদান করতে পারেন।

ভ্রামমান খাবারের দোকান

একটি ভ্রামমান খাবারের দোকান খুলেও আপনি আপনার ছোট শহরে একটি ব্যবসা স্থাপন করতে পারেন। আপনি আপনার শহরের বাসিন্দাদের জন্য বিভিন্ন ঋতু বা আবহাওয়ার উপর ভিত্তি করে খাদ্য উৎপাদন করতে পারেন। আপনার এই সেবাটি যখন সকল বাসিন্দাদের কাছে জনপ্রিয় হবে তখন আপনি অধিক মুনাফা আয় করতে পারবেন। এক্ষত্রে আপনি আপনার পরিবারের সদস্যদের সাহায্য নিতে পারেন।

শিক্ষাদান

শিশুরা সাধারণত গণিত বা ইংরেজির মতো বিষয় গুলোতে দুর্বল হয়ে থাকে। ছোট শহরের বেশির ভাগ অভিভাবকই ব্যস্ত থাকে তাই তারা তাদের শিশুদের এই বিষয় গুলো ভালো ভাবে তাদারকে করতে পাওে না। বর্তমানে অনলাইনে শিক্ষাদান কর্মসূচি গুলো অধিক জনপ্রিয় হলেও অনেক অভিভাবকই তাদের বাচ্চাদের পড়াশোনার জন্য গৃহশিক্ষকের উপর নির্ভরশীল হয়ে থাকে। বাচ্চাদের বিভিন্ন বিষয়ের দুর্বলতা কাটিয়ে উঠাতে গৃহ শিক্ষকের বিকল্প নেই।

গাড়ি ধোঁয়া

মানুষ সব সময়ই তার গাড়িকে পরিষ্কার ও চকচকে রাখতে পছন্দ করে। তাই আপনি আপনার ছোট শহরের বাসিন্দাদের জন্য গাড়ি ধোঁয়া ব্যবসা শুরু করতে পারেন। এক্ষেএে যাদের নিজস্ব গাড়ি রয়েছে তারাই আপনার গ্রাহক হতে পারে।

রেঁস্তোরা

শহর ছোট কিংবা বড় হোক রেঁস্তোরার চাহিদা সব জায়গায়ই অভিন্ন। তাছাড়া রেঁস্তোরা ব্যবসা একটি জনপ্রিয় ব্যবসায়ের ধারণা। আপনি আপনার ছোট শহরের বাসিন্দাদের স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখে একটি রেস্তোরা ব্যবসা খুলতে পারেন। আপনি সেখানে বিভিন্ন ধরনের প্রাকৃতিক উপাদান থেকে খাবার তৈরী করে এবং তা পরিবেশন করে বাসিন্দাদের কাছে সুনাম অর্জন করতে পারেন।তবে এক্ষেত্রে আপনাকে আপনার শহরের অন্যান্য রেস্তোরার কথা মাথায় রেখে সর্বোত্তম সেবা প্রদান করতে হবে।

জিম সেন্টার

বর্তমানে অনেকেই জিম এর প্রতি আসক্ত। তাই আপনি আপনার ছোট শহরে একটি জিম সেন্টার স্থাপন করতে পারেন। আপনার শহরের আবহাওয়া এবং আপনার ব্যবসার অবস্থানের উপরই নির্ভর করেই আপনি একজন সফল উদ্যোক্তা হতে পারেন।