কিভাবে ব্যবসাভিত্তিক মুরগি খামার গড়ে তুলবেন

স্বাগতম জানাই banglapreneur.com এ। কিভাবে ব্যবসাভিত্তিক মুরগি খামার গড়ে তুলবেন।

কিভাবে ব্যবসাভিত্তিক মুরগি খামার গড়ে তুলবেন

কিভাবে ব্যবসাভিত্তিক মুরগি খামার গড়ে তুলবেন

 

মুরগির খামারের জন্য প্রথমে উন্নত জাতের মুরগি নির্বাচন করতে হবে। এর পর ঠিক করতে হবে মুরগির বাসস্থান। মুরগির বাসস্থান, আকার, আয়তন, জায়গার উপর ভিত্তি করে মুরগির সংখ্যা নির্ধারণ করতে হবে। মুরগির খামার স্থাপনের আগে পরিবহন ব্যবস্থা, পানি ও শ্রমের সহজ লভ্যতা ও চার পাশের সামাজিক অবস্থা বিবেচনা করে খামার স্থাপন করতে হবে।

আপনি যদি ছোট খামার দিয়ে শুরু করতে চান, তাহলে এই সব বিবেচনা না করলেও চলে। আর যদি ব্যবসাভিত্তিক খামার অর্থাৎ বড় খামার স্থাপন করতে চান তাহলে অবশ্যই এই সব বিবেচনা করে শুরু করতে হবে।

যেহেতু আপনি ব্যবসাভিত্তিক খামার স্থাপন করতে চান তাহলে যাতে বেশী লাভ করা যায় সেই দিক মাথায় রেখে সঠিক পরিকল্পনা করতে হবে।

ব্যবসাভিত্তিক মুরগি খামার মুলত তিন ধরনের হতে পারেঃ

১। খাওয়ার ডিম উৎপাদনের ব্যবসা।

২। ব্রয়লার বা খাওয়ার মাংস উৎপাদনের জন্য মুরগি পালন

৩। ডিম ও বাচ্চা উৎপাদনের ব্যবসা

চলুন এই তিন ধরনের মুরগি খামার নিয়ে আলোচনা করা যাক।

খাওয়ার ডিম- উৎপাদন ব্যবসাঃ

মুরগিন ডিমের চাহিদা দিন দিন যেভাবে বাড়তেছে সেই তুলনায় এখনও খামার গড়ে উঠে নাই। তাই সময়ের সাথে এই ব্যবসা করা যেতেই পারে। বেশী ডিম পাওয়ার জন্য উন্নত জাতের মুরগি দিয়ে খামার শুরু করতে হবে। ভাল জাতের মুরগী দিয়ে বছরে ২০০-৩০০টি ডিম পাওয়া যেতে পারে। অনর্থক পুরুষ বাচ্চা কিনে অপব্যায় থেকে রক্ষা পেতে বাচ্চা যাচাই করে কিনতে হবে।

আপনার খামারের জন্য যতগুলো বাচ্চা প্রয়োজন তা দফায় দফায় না কিনে এক সাথে কিনা ভাল মুরগির বয়স যখন ১৮ মাস শেষ হবে তখন বিক্রি করে দিতে হবে, তা না লে আস্তে আস্তে ফার্মে লোকসান হতে পারে।

যখন আপনার খামারের প্রথম বারের কেনা বাচ্চাগুলোর বয়স ১২ মাস অর্থাৎ ১ বছর হবে তখন সমসংখ্যক নতুন ১ দিনের বাচ্চা কিনতে হবে, এতে করে আপানার খামারের ভারসাম্য ঠিক থাকবে।

ব্রয়লার বা খাওয়ার মাংস উৎপাদনের জন্য মুরগি পালনঃ

ব্রয়লার বা খাওয়ার মাংস উৎপাদনের জন্য মুরগি পালন দিন দিন বেড়েই চলেছে। আজকের বাজারে যদি এই জাতের মুরগি না থাকত তাহলে ভাবুনতো কত টাকা দিয়ে দেশী জাতের মুরগী কিনে খেতে হত?

ব্রয়লার দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। ৬ সপ্তাহ বয়স থেকেই ব্রয়লার মুরগি বিক্রি করা যেতে পারে। কোন মুরগির বয়স যদি ৮ সপ্তাহের বেশী হয় তাহলে লাভের পরিবর্তে লোকসান বেশী হবে। ব্রয়লার মুরগির খাবার তুলনামূলক বেশী হওয়ার অনেক খামারী দেশীয় উপায়ে খাবার প্রস্তুত করছে।

ডিম ও বাচ্চা উৎপাদনের ব্যবসা

যদি ফার্ম বাচ্চা উৎপাদনের উদ্দেশ্য হয় তাহলে হয় খাটি জাতের মুরগির বাচ্চা পুষতে হবে। খাটি জাতের মুরগি পেতে প্রথম দিকে একটু বাড়তি খরচ হতে পারে। বাচ্চা কেনার দুই মাস পরে পুরুষ বাচ্চা আলাদা করতে হবে। এতে করে কিছু লোকসান কমাতে হবে। ৬ মাস পর থেকে স্ত্রী মুরগি ডিম দিতে শুরু করে।

আমাদের লেখাটি ভাল লেগে থাকলে শেয়ার করুন। পরবর্তিতে এই রকম লেখা পেতে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন।

ধন্যবাদ।