ব্যর্থ হওয়া দোষের কিছু না

ব্যর্থ হওয়া সফল হওয়ার পূর্ব শর্ত 

ব্যর্থ হওয়া দোষের কিছু না

ব্যর্থ হওয়া দোষের কিছু না

আমাদের মধ্যে যদি কেউ কোন কাজে ব্যর্থ হই তবে আমরা অনেকেই হতাশ হয়ে পড়ি। তবে যারা জীবনে সফলতা অর্জন করতে চায় তারা এই ব্যর্থতাকে সফলতার একটি সিড়ি মনে করে।

 

ব্যর্থতার অনেক সংজ্ঞা থাকলেও আমি বিশ্বাস করি, ব্যর্থ হওয়া মনে আপনি চেষ্টা করিছিলেন, আপনি চেষ্টা করেছেন দেখেই ব্যর্থ হয়েছেন, আপনি যদি ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা নিয়ে আবার চেষ্টা করেন তবে আপনি সফল হবেন।

 

এই বিশ্বে আপনি এমন কোন সফল ব্যক্তির নাম বলতে পারবেন না যিনি কোন দিন ব্যর্থ না হয়ে সফলতা অর্জন করতে পেরেছিল। তাহলে আপনি ব্যর্থ হলে কেন ভেঙ্গে পড়বেন? অনেক সময় ব্যর্থতা আমাদের জীবেন বড় আশীর্বাদ বয়ে আনে।

 

আপনি একটু খেয়াল করলে দেখবেন, যখন কোন শিশু প্রথম বার হাঁটতে শিখে তখন সে কম করে হলেও ১০০ বার পরে যায়, তার মানে এই না যে ঐ শিশু আর কোন দিন হাঁটতে পারবেন না। আমরা যখন শিশু ছিলাম তখন আমরাও কম করে ১০০ বার হাঁটতে গিয়ে ব্যর্থ হয়েছি, কিন্তু আজকে দেখুন আমরা হাঁটতে পারি, দৌড়াতে পারি। তাহলে এখন কেন সাময়িক ব্যর্থ হলে হাল ছেড়ে দিব?

 

আপনি টমাস আলভা এডিসনের (Thomas Alva Edison) নাম শুনে থাকবেন, যিনি সর্ব প্রথম বাল্ব আবিষ্কার করেছিলেন। আপনি জেনে অবাক হবেন তিনি ১ হাজার বার ব্যর্থ হয়েছিলেন। যখন একজন রিপোর্টার টমাস এডিসনকে তার ১ হাজার বার ভুল সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করেছিল, এর উত্তরে তিনি বলছিলেন – 

“আমি ১ হাজার বার ব্যর্থ হইনি। বাল্বটি আবিষ্কার হতে ১ হাজার পদক্ষেপ নিয়েছিল”

 

আপনি বিখ্যাত বাস্কেটবল খেলোয়াড় (Michael Jeffrey Jordan) মাইকেল জেফরি জর্ডান এর নাম শুনে থাকবেন। তিনি তার প্রজন্মের সবচেয়ে জনপ্রিয় বাস্কেটবল খেলোয়াড় ছিলেন। আপনি জেনে অবাক হবেন, এই জর্ডানকে হাই স্কুল বাস্কেটবল দলের জন্য নির্বাচিত করা হয়নি।

 

তখন সে এই ব্যর্থতা নিয়ে যদি বসে থাকতেন তবে তিনি ছয়বার ফাইনালের সবচেয়ে দামী খেলোয়াড়ের পুরস্কার লাভ করতে পারতেন না। আজকে মাইকেল জেফরি জর্ডানকে সর্বকালের সেরা বাস্কেটবল খেলোয়াড় বলা হয়। যার শুরুটা হয়েছিল ব্যর্থতাকে আলিঙ্গন করার মাধ্যমে। আরোও পড়ুন – শতভাগ নিখুঁত দিন নেই

 

ব্যর্থতার সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে অভিজ্ঞতা অর্জন করা যায়। ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা নিয়ে আরো সুন্দর ভাবে সেই কাজটি করা যায়।

 

যে জীবনে কোন দিন ব্যর্থতার মুখ দেখেনি সে কোন দিনই সফলতা কি তা জানতে পারবে না। তাই আপনি যদি কোন দিন ব্যর্থ হয়ে থাকেন তবে এই ব্যর্থতাকে সমস্যা হিসাবে না নিয়ে সেখান থেকে শিক্ষা নিয়ে সামনে এগিয়ে যেতে হবে। কে এম চিশতি সিয়াম – ইউটিউব লিঙ্ক