ব্যবসা শুরু করতে চাইলে এই ৫টি বিষয় অবশ্যই করতে হবে

ব্যবসা শুরু করতে চাইলে যে ৫টি বিষয় অবশ্যই করতে হবে

ব্যবসা শুরু করতে চাইলে

ব্যবসা শুরু করতে চাইলে

নিজের ব্যবসা শুরু করতে চাইলে আপনাকে প্রথমে কিছু গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিতে হবে। আজকের এই আর্টিকেল আমি আপনার সাথে ব্যবসা শুরু করতে চাইলে যে ৫টি বিষয় অবশ্যই করতে হবে তা তুলে ধরার ইচ্ছা প্রকাশ করছি।

১। গ্রাহকের সমস্যার সমাধান হয় এমন বিজনেস আইডিয়া খুঁজে বের করতে হবে

লাভজনক ব্যবসার ধারণা পেতে আপনাকে কিছু হোমওয়ার্ক করতে হবে। আপনার বিজনেস আইডিয়া এমন কিছু হওয়া উচিত যা আপনার গ্রাহকদের চাহিদা এবং একটি নিদিষ্ট সমস্যার সমাধান করবে।

আপনাকে বাজারের শূন্যস্থান পূরণ করতে হবে। কেননা আমরা সবাই জানি যে, একটি ব্যবসা লাভজনক হতে পারে তখনই যখন সেই ব্যবসার মাধ্যমে গ্রাহকের কোন একটি সমস্যার সমাধান করা হয়।

বিজনেস আইডিয়া নেই? সমস্যা নেই- দেখে নিন ২০২০ সালের জন্য ১২০টি লাভজনক বিজনেস আইডিয়া

২। ব্যবসার নামকরনে গুরুত্ব দিতে হবে

ব্যবসায়ের জন্য নাম নির্বাচন করা একটি মজার প্রক্রিয়া। আপনার ব্যবসায়ের নামটি এক বা দুই শব্দের হওয়া উচিত।

এছাড়া ইউনিক, উচ্চারণে সহজ এবং অর্থপূর্ণ হওয়া উচিত। তাছাড়া ব্যবসার নামের সাথে আপনার পণ্যের বা সেবার সাথে মিল রয়েছে কিনা তাও বুজতে হবে।

৩। ব্যবসায়ের কাঠামো

আপনার ব্যবসায়ের জন্য সঠিক আইনী কাঠামো নির্বাচন করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বেশিরভাগ ব্যবসা এক ব্যক্তি মালিকানা, পার্টনাশীপ, এলএলসি হয়ে থাকে।

এক একটি কাঠামোর এক একটি সুবিধা ও অসুবিধা রয়েছে। তাই কোন ব্যবসায়ের কাঠামো আপনার জন্য উপযুক্ত তা গবেষণা করে নিতে হবে।

৪। প্রাইমারি ও সেন্ডারি মার্কেট রিসার্চ করুন

যেকোন ব্যবসা শুরু করার আগে মার্কেট রিসার্চ অবশ্যই করতে হবে। আপনি চাইলেই হুট করে যেকোন একটি যেকোন জায়গার শুরু করতে পারেন না।

আপনার পণ্য বা সেবা কোন শ্রেণীর গ্রাহক গ্রহন করবে, বাজারে প্রতিযোগিতা কেমন ইত্যাদি জানার একমাএ উপায় প্রাইমারি ও সেন্ডারি মার্কেট রিসার্চ করা।  

৫। ব্যবসার জন্য মূলধন যোগাড় করা

আপনি যদি সেবা ভিত্তিক ব্যবসাও শুরু করেন তাহলেও মূলধন লাগবে। আপনি কীভাবে আপনার ব্যবসায় অর্থায়ন করবেন এবং প্রফিট আসা না পর্যন্ত কিভাবে আপনি ব্যবসাটিকে চালাবেন তার অগ্রিম পরিকল্পনা করতে হবে।

আপনি আজকে ব্যবসা শুরু করে কালকেই লাভ করতে পারবেন না। এছাড়া আপনার যদি নিজের টাকা না থাকে তাহলে হয়ত পরিবারের সদস্যের টাকা বা ব্যাংক লোন নিয়ে ব্যবসা শুরু করার দরকার হতে পারে।

এক্ষেএে ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে ব্যবসা করা যথেষ্ট ঝুঁকির কেননা ব্যবসায় লাভ করার পাশাপাশি ব্যাংকের সুদও দিতে হবে। তাই নিজের টাকা দিয়ে আপনি ছোট আকারে ব্যবসা শুরু করতে পারেন এবং ধীরে ধীরে সামনে এগিয়ে যেতে পারেন।