প্রতিদিনের ৫টি অভ্যাস যা আপনার কাজে আরো প্রেরণা ও শক্তি যোগাবে

প্রতিদিনের ৫টি অভ্যাস যা আপনার কাজে আরো প্রেরণা ও শক্তি যোগাবে

প্রতিদিনের ৫টি অভ্যাস যা আপনার কাজে আরো প্রেরণা ও শক্তি যোগাবে

এই বিশ্বে অন্যতম কঠিন কাজ নিজেকে নিজে অনুপ্রাণিত রেখে কাজ করে যাওয়া। কোন কাজের প্রতি যদি মনোযোগ এবং অনুপ্রেরণা না থাকে তবে সেই কাজে সফলও হওয়া যায় না। তবে আজকের এই আর্টিকেলে আমি আপনার সাথে প্রতিদিনের ৫টি অভ্যাস শেয়ার করতে চাই যা আপনার কাজে আরোও প্রেরণা ও শক্তি যোগাবে।

#১। স্পষ্ট লক্ষ্য নির্ধারণ।

আপনার লক্ষ্য নির্ধারণ হয়ে গেলে আপনাকে নিশ্চিত হতে হবে যে, আপনার লক্ষটি যথেষ্ট স্পষ্ট এবং একটি নির্দিষ্ট সময়রেখার মধ্যে আপনি বাস্তবায়ন করতে চাচ্ছেন।

প্রতিদিন আপনাকে সেই লক্ষ্যকে মাথায় রেখে কাজ করে যেতে হবে এবং লক্ষ্য পূরণের দৌড়ে আপনি কোথায় অবস্থান করছেন তা বার বার দেখে নিতে হবে।

#২। ঘুমানোর আগে পরিকল্পনা তৈরি করুন।

রাতে ঘুমানোর আগে একটু সময় নিয়ে আগামীকাল কি করতে চান তার একটি পরিকল্পনা করে ফেলুন।

একটি তালিকা সেট করুন এবং সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ কাজটি আগে শেষ করার চেষ্টা করুন এবং তুলনামূলক কম গুরুত্বপূর্ণ কাজটি পরে শেষ করুন। ঘুমানোর আগে পরের দিনের পরিকল্পনা করলে কখন কোন কাজ করবেন এবং কোন কাজ করবেন না তার একটি ধারনা থাকবে।

#৩। আপনাকে বিরক্ত করবে এমন জিনিসগুলি এড়িয়ে চলুন।

নিজেকে অনুপ্রাণিত রাখতে চাইলে সকল ধরনের বিরক্তির উৎস থেকে নিজেকে আলাদা করে ফেলুন। নেতিবাচক মানুষ থেকে দূরে থাকুন এবং যারা মানুষ নিয়ে নয় বরং আইডিয়া নিয়ে কথা বলে তাদের সাথে বেশী সময় পার করুন।

#৪। নিজেকে বার বার স্মরণ করিয়ে দিন যে সময় মূল্যবান।

সময় প্রতিটি মানুষের জন্যই সমান কিন্তু সবাই সমান ভাবে তার সময় খরচ করে না। সময় ক্ষেএ বিশেষ টাকার চেয়েও মুল্যবান। আপনি যখন কোন কাজ করবেন তখন কতটুকু সময় ঐ কাজের পিছনে ব্যয় করছেন এবং কি পরিমান ফলাফল পেতে পারেন এর হিসাব করে নিতে হবে।

মূলকথা আপনাকে প্রতিটি মুহূর্তকে কাজে লাগাতে হবে। কোন বড় লক্ষ্য অর্জন করার জন্য আপনার সেই লক্ষটি ভেঙ্গে ছোট ছোট লক্ষ্যে পরিনত করুন এবং অবশ্যই একটি নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তা বাস্তব করুন।

#৫। নিজেকে নিজেই অনুপ্রানিত রাখুন।

অন্যের কাছ থেকে পাওয়া অনুপ্রেরনা কিছু দিন পরে আর কাজ করে না, কিন্তু নিজের মধ্যে অনুপ্রেরনার বীজ বপন করতে পারলে সবসময় আপনার কাজে আরোও প্রেরণা ও শক্তি যোগাতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে আশাবাদী হতে হবে, অন্যের সাথে নিজেকে তুলনা করতে পারবেন না এবং সবসময় বড় স্বপ্ন দেখতে হবে। – কে এম চিশতি সিয়াম – ইউটিউব লিঙ্ক