প্রাথমিক অবস্থায় প্রতিটি উদ্যোক্তার যা অনুসরণ করা উচিত

প্রাথমিক অবস্থায় প্রতিটি উদ্যোক্তার যা অনুসরণ করা উচিত

প্রাথমিক অবস্থায় প্রতিটি উদ্যোক্তার যা অনুসরণ করা উচিত

প্রাথমিক অবস্থায় প্রতিটি উদ্যোক্তার যা অনুসরণ করা উচিত

উদ্যোক্তা হওয়া মোটেই সহজ নয়। উদ্যোক্তা হতে হলে আপনাকে একই জিনিস ভিন্নভাবে চিন্তা করতে হবে। আজকে আমি এই লেখনীতে এমন ১০টি বিষয় নিয়ে এসেছি যা প্রতিটি উদ্যোক্তার অনুসরণ করা উচিত বলে মনে করছি। আসুন জেনে নেই কি সেই বিষয় যা প্রতিটি উদ্যোক্তার অনুসরণ করা উচিত।

শারীরিকভাবে সুস্থ থাকুন

যে সকল গুরুত্বপূর্ণ বিষয় একজন উদ্যোক্তা সব সময় মেনে চলা উচিত তার মধ্যে অন্যতম শারীরিকভাবে সুস্থ থাকা। আপনি যদি সুস্থ নাই থাকতে পারেন তাহলে কাজ করতে পারবেন না, যা আপনার উদ্যোক্তা হওয়ায় বড় বাঁধা সৃষ্টি করবে।

কঠোর এবং একাকি কাজ করুন

যদিও এটি বিরক্তিকর শোনায়, প্রাথমিক ভাবে একজন উদ্যোক্তাকে একাকি কাজ করতে হয়। একাকি কঠিন প্ররিশ্রমের মাধ্যমে একজন উদ্যোক্তা তার প্ল্যান সাজিয়ে নেয়।

প্রতিদিন আধা ঘন্টা চিন্তা করুন

একজন উদ্যোক্তার প্রতিদিন অগণিত ঘন্টা কাজ করতে হয়। কখন কোন কাজ করা বেশী গুরুত্বপূর্ণ তা আগেই ঠিক করে রাখে। তাই একজন উদ্যোক্তার প্রতিদিন আধা ঘন্টা চিন্তা করার জন্য সময় বাজেট রাখতে হবে।

সব সময় সাথে একটি নোটবুক রাখুন

উদ্যোক্তার হাতে সব সময় একটি নোট বুক রাখা উতিচ। কখন কোন বিষয় লিখে রাখতে হয় সেই বিষয় মাথায় রেখে এই নোট বুক হাতে রাখা। আপনি চাইলে ইলেকট্রনিক ডিভাইজও হাতে রাখতে পারেন।

সোসাল মিডিয়ায় নেটওয়ার্ক

সোসাল মিডিয়ায় একটিভ থাকুন শুধু মাএ নেটওয়ার্ক বাড়াতে। অপ্রয়োজনীয় সময়কে সোসাল মিডিয়ার কাজে লাগিয়ে নেটওয়ার্ক বাড়িয়ে নিন। আপনার ব্যবসার জন্য বিভিন্ন মিডিয়ায় একাউন্ট খুলুন। প্রতিদিন কিছু সময় সেখানে ব্যয় করুন এবং আপনার সেবা বা পণ্য অন্যকে জানিয়ে দিন।

“না” বলতে শিখুন

“না” বলতে পারা আরেকটি দরকারী দক্ষতা। আপনি কখনই সবাইকে খুশী রাখতে পারবেন না। যদি সবাইকে খুশী রাখতে চান তাহলে উদ্যোক্তা না হয়ে আপনাকে আইস-ক্রিম বিক্রি করতে হবে। তাই যখন আপনার “না” বলার দক্ষতা থাকতে হবে।

দক্ষতা বাড়িয়ে নিন

আপনি যেই বিভাগে কাঁচা আছেন, সেখানে দক্ষতা বাড়িয়ে নিন। ধরুন আমি ইংলিশ এ কথা বলতে কম সাচ্ছন্দ বোধ করি, তাহলে আমার উচিত হবে প্রতিদন কম পক্ষে ১৫ মিনিট এই দক্ষতা বাড়িয়ে নেওয়া। তেমনি যেখানে অদক্ষ সেখানে ঝালিয়ে নিন।

আতঙ্কিত হবেন না বা ক্রোধ হারাবেন না

ভয় এবং রাগ এই দুই’ই খারাপ। কখনই আতঙ্কিত হবেন না বা ক্রোধ হারাবেন না। এতে আপনি আপনার জায়গা থেকে পিছিয়ে যাবেন।

আপনার চারপাশের মানুষ নিয়ে সচেতন থাকুন

একজন উদ্যোক্তার সব সময় পজিটিভ মাইডের হওয়া উচিত। আপনার চারপাশের নেগেটিভ মানুষকে দূরে রাখুন। যারা আপনাকে হতাশ করবে তাদের থেকে দূরে থাকুন।

সকল ধরনের পার্টি এড়িয়ে চলুন

আপনি যতক্ষন না সমাজের এক জন হতে না পারছেন, ততক্ষন সকল ধরনের পার্টি এড়িয়ে চলুন।