পিরোজপুর জেলায় ব্যবসা করার জন্য ৫টি লাভজনক ব্যবসার আইডিয়া

পিরোজপুর জেলায় ব্যবসা করার জন্য ৫টি লাভজনক ব্যবসার আইডিয়া

পিরোজপুর জেলায় ব্যবসা করার জন্য ৫টি লাভজনক ব্যবসার আইডিয়া

পিরোজপুর জেলায় ব্যবসা করার জন্য ৫টি লাভজনক ব্যবসার আইডিয়া

ঢাকা থেকে ১৮৪ কিমি দূরত্বে পিরোজপুর জেলার অবস্থান। মোগল, নবাব, ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানিসহ অনেক কাল থেকে পিরোজপুরের মানুষ লবণ ও চালের ব্যবসার সাথে জড়িত ছিল। আজকে আমরা পিরোজপুর জেলায় ব্যবসা করার জন্য ৫ টি লাভজনক ব্যবসার আইডিয়া নিয়ে আলোচনা করব।

এক নজরে পিরোজপুর জেলার অর্থনীতি

প্রায় ১৩ লক্ষাধিক মানুষের এই পিরোজপুর জেলায় বড় শিল্প না থাকলেও ১৫টি অধিক মাঝারি শিল্প রয়েছে । ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প রয়েছে প্রায় ৩৩০০ এর অধিক। এছাড়া নারিকেল, ধান, সুপারি, পেয়ারা, পান চাষে এই জেলার বেশ সুনাম আছে। প্রায় দেড় লক্ষ একর অকৃষি জমিকে কাজে লাগাতে পারলে পিরোজপুর জেলায় অর্থনীতি আরো এগিয়ে যাবে। আসুন জেনে নেই কোন ব্যবসা পিরোজপুর জেলায় শুরু করলে লাভবান হওয়া যেতে পারে।

শুরু করুন পিরোজপুরে নার্সারি ব্যবসা

নার্সারি কি? বিভিন্ন রকমের গাছগাছড়ার বীজ বা কলম করে চারা উৎপাদন, পরিচর্যা, বিক্রয়ের জন্য স্থানই নার্সারি ব্যবসা। অল্প পুঁজি, পরিশ্রম এবং আগ্রহের সমন্বয় ঘটাতে পারলে নার্সারি ব্যবসা করে সাফল্য অর্জন করা সম্ভব।

কম টাকা দিয়ে পতিত জমি বা উঠানে নার্সারি ব্যবসা শুরু করা সম্ভব। পিরোজপুর জেলাতে নার্সারি ব্যবসা নতুন নয়। অনেক নার্সারি আছে এই জেলাতে। সারা দেশে ব্যাপক চাহিদা বছরের সব সময়। তবে আষাঢ় শ্রাবণ ও জ্যৈষ্ঠ মাসে নার্সারি ব্যবসার জন্য উত্তম। তাই আপনি চাইলে খুব সহজেই ঝুঁকি মুক্ত ব্যবসা হিসাবে এটি শুরু করতে পারেন। নিজ জমি থাকলে বছরে একটি বড় নার্সারি থেকে ৩০ লাখ টাকা পর্যন্ত আয় করা যায়।

হাঁস ও মাছ চাষ

আপনার যদি একটি ছোট বা বড় পুকুর থেকে থাকে তাহলে আপনি খুব সহজেই এই ব্যবসা শুরু করতে পারবেন। হাঁস ও মাছ একসাথে চাষ করলে খরচ কম হয়। পুকুরের পানিতে মাছ বড় হবে এবং পানির উপরে হাঁসের ঘর থাকবে। হাঁসের খাবারের অংশ ও বিষ্ঠা মাছের খাবার হিসাবে ব্যবহার করা যায়। এতে মাছের খাবার শুধু একবেলা দিলেই চলে।

পারিবারিক খামার

একটি পরিবারের সদস্যরা সবাই মিলে ফলজ, বনজ বা ঔষধী গাছ ও প্রাণীর প্রতিপালন, পরিচর্যা, রক্ষণাবেক্ষণ করার মাধ্যমে বাণিজ্যিক উদ্দেশে লাভ বা লোকসান ভাগাভাগি করে নেয় থাকেই পারিবারিক খামার বলে। একটি পারিবারিক খামারে সাধারনত হাঁস, মুরগী, গরু, ছাগল, ভেড়া ইত্যাদি প্রানী পালন করা হয়ে থাকে। তাছাড়া বিভিন্ন জাঁতের ফল যেমন, পেয়ারা, আম, কাঁঠাল, নারিকেল, লেবু, পেঁপে, ইত্যাদি চাষ করা হয়। তাই বর্তমান ও ভবিষ্যৎ দিকের চিন্তা মাথায় রেখে একটি পারিবারিক খামার স্থাপন করতে পারেন।

ডেকেরটর ব্যবসা

সততা ও পরিশ্রম করতে পারলে ডেকেরটর ব্যবসা একটি লাভজনক ব্যবসা হিসাবে কাজ করা যায়। প্রথম দিকে একটু বিনিয়োগ বেশী থাকলেও পরে বেশী বিনিয়োগ করতে হয় না। এটি একটি সেবা ভিত্তিক ব্যবসা গ্রাহককে সেবা দেওয়ার পাশাপাশি আপনি নিজেও লাভবান হতে পারবেন।

ফার্মেসী ব্যবসা

বেশী বেচা কেনার ব্যবসা করতে চাইলে শুরু করুন ফার্মেসী ব্যবসা। কেননা এই ব্যবসা সব সময় চলে। গরম বা ঠান্ডা, বর্ষা কিংবা শীত যাইহোক না কেন ঔষধ খেতেই হয়। তাই ফার্মেসী ব্যবসা সব সময় লাভজনক। তবে ফার্মেসী দোকানের অবস্থান খুবই সাবধানে নির্বাচন করতে হবে। ভাল লোকেশন এই ব্যবসার মূল চাবিকাঠি।