তর্কে যাবেন না

তর্কে জিতা বা হারার সাথে সাফল্যের কোন মিল নেই

তর্কে যাবেন না

তর্কে যাবেন না

তর্ক করা বোকা লোকদের কাজ! যারা জীবনে সফল হতে চায় তারা কখনই নিজেকে তর্কে জড়াবে চাইবে না। কারন তর্ক করে শুধুমাএ কিছু হারানো যায়, কিছু পাওয়া যায় না। কেউ কোন দিন তর্ক করে জিততে পারে না।

 

অনেক সময় আমরা যখন তর্ক করি তখন মনে হতে পারে জিতে গেছি, আসলে আমরা কেউ কি জিততে পারি? কখনই তর্কের মাধ্যমে অন্যের মতামত বা বিশ্বাসের পরিবর্তন করানো যায় না।

 

আপনি যদি কারো মতামত বা বিশ্বাস পরিবর্তন করাতে চান তবে কখনই তর্কে যাবেন না। কেননা এতে ঐ বিশ্বাস ও মতামতের উপর তার আরো আস্থা বাড়বে।

 

তর্কে জিতা বা হারার সাথে সাফল্যের কোন মিল নেই। বরং তর্কে জিতার একমাএ উপায় তর্কে না জড়ানো। বন্ধুদের সাথে যদি তর্কে জিততে চান তবে সেই বন্ধুদের হারানোর মানসিক প্রস্তুতি নিয়ে রাখুন।

 

অনেক সময় তাদের মতের মিল না হলেও অনেকই আপনার কথা মেনে নিতে পারে, তবে এর বিপরীতে সে কোন দিনই মন দিয়ে আপনার কথা মানবে না বরং আপনাকে খারাপ চোখে দেখবে।

 

অনেক সময় খেয়াল করলে দেখবেন অনেক সেলসম্যান গ্রাহকের সাথে তর্ক করে থাকে। এরা আসলে বোকা সেলসম্যান। কারন গ্রাহকের সাথে তর্কে জড়ানো মানে আপনার পণ্য বিক্রিতো হবেন না, বরং আপনার ব্যবসার দিকে সে দ্বিতীয় বার ফিরে তাকাবে না।

 

কারো সাথে তর্ক করার মানে হচ্ছে ঐ ব্যক্তির মন থেকে উঠে যাওয়া। সারা জীবনের জন্য তার চোখে একজন অপ্রিয় মানুষ হয়ে থাকা, যা আপনি অবশ্যই চাইবেন না।

 

তর্কের মাধ্যমে কোন কিছু প্রমান করা যায় না, এছাড়া ভুল বুঝাবুঝির সমাধান করাও তর্কের মাধ্যমে সম্ভব নয়। আজ থেকে আপনি সিন্ধান্ত নিন, কারো সাথে তর্কে জড়াবেন না, কেউ যদি আপনার সাথে তর্কে জড়ায় হবে তাকে জিততে দিন। এভাবে কিছু দিন চলতে দিন, আমি বিশ্বাস করি এতে আপনার লাভ ছাড়া কোন লস হবে না।

 

সত্যিকার অর্থে আপনি যদি জিততে চান, তার একমাএ উপায় তর্কে জড়াবেন না। তর্কে না জড়ানোই তর্কে জেতার একমাএ ও সেরা উপায়। আরো পড়ুন – ব্যর্থ হওয়া দোষের কিছু না

 

আর আপনি যদি অন্যের কাছে নিন্দার পাএ হতে চান তবে বেশী বেশী করে তর্ক করতে পারেন, বেশী সময় লাগবে না আপনাকে দেখা মাএ লোকেরা ক্ষেপে উঠবে, আপনার নিন্দায় ছোট বড় সবাই মুখর হয়ে ওঠবে।   

 

তাইতো, আমাদের কোন অবস্থায় তর্কে জড়ানো উচিত হবে না। এই বিষয়টি নিয়ে বিশ্বের সকল মনিষী নানা ভাবে সতর্ক করে গেছেন। আমাদের উচিত হবে তাদের উপদেশ শোনা।- কে এম চিশতি সিয়াম – ইউটিউব লিঙ্ক