ছাএ অবস্থায় কিভাবে ধনী হওয়া যায়

ছাএ অবস্থায় ধনী হতে চাইলে

ছাএ অবস্থায় ধনী হতে চাইলে

আমাদের প্রায় প্রতিটি মানুষের মধ্যে ধনী হওয়ার ইচ্ছা আছে, ছিল এবং আগামীতেও থাকবে। তবে সমস্যা হচ্ছে আমরা জীবনের মাঝ বয়সে ধনী হতে চাই। কিন্তু আমরা যদি আমাদের জীবনের শুরু অবস্থা থেকেই ধনী হওয়ার ইচ্ছা জাগ্রত করতে পারি তবে অতি দ্রুত ধনী হতে পারব।

ছাএ অবস্থায় ধনী হতে চাইলে আপনার মানসিকতার পরিবর্তন করতে হবে। একজন মাঝ বয়সী মানুষ যেভাবে চিন্তা করতে পারে আপনাকে সেই ভাবেই চিন্তা করতে হবে। আপনার বয়স যদি এখন হয় ২০, তবে আপনাকে ৩০ বছর বয়সী একজন মানুষের মত চিন্তা করতে হবে।

ছাএ অবস্থায় ধনী হতে চাইলে আপনাকে কিছু বিষয় অবশ্যই বাদ দিতে হবে।

যেমন অতিরিক্ত আড্ডা দেওয়া, বাইরে রেস্টুরেন্টে খেতে যাওয়া, অন্যকে দেখানোর জন্য কিছু কেনা ও করা। এর পরে রয়েছে ফ্যাশনে অতিরিক্ত টাকা খরচ করা, অতীত নিয়ে পরে থাকা এই সকল বিষয় অবশ্যই বাদ দিতে হবে।

প্রচন্ড ইচ্ছাশক্তিই আপনার ধনী হওয়ার পথকে সুগম করতে পারে। একজন মানুষের যখন বয়স বেড়ে যায় তখন তার মধ্যে দায়িত্ববোধ জাগ্রত হয়।

এই দায়িত্ববোধ জাগ্রত হওয়ার কারনে তখন ইনকামের পথ খুঁজতে থাকে, যা খুঁজতে খুঁজতে অনেক সময় পার করে দেয়। কিন্তু আপনাকে এই দায়িত্ববোধ জাগাতে হবে এখনই।

একজন মানুষের যখন সংসার থাকে, পরিবার থাকে, বাচ্চা থাকে তখন সে ইচ্ছা করলেও রিস্ক বা ঝুঁকি নিতে পারে না। কিন্তু আপনি এখন স্বাধীন, এখন এই সময়টাই হচ্ছে রিস্ক নেওয়ার।

ছাএ অবস্থায় ধনী হতে চাইলে ইনকামের দিকে বেশী নজর দিতে হবে। কম পক্ষে দুইটি ইনকামের পথ বানাতে হবে। আসুন জেনে নেই ছাএ অবস্থায় ধনী হওয়ার কয়েকটি সহজ ও কার্যকারী উপায়।

#১। অনলাইন ইনকাম।

আপনি এখন ইন্টারনেটের স্বর্ণ যুগে বাস করছেন। একটু বুদ্ধিমত্তা এবং প্রচণ্ড আগ্রহ থাকলে অনলাইন থেকে টাকা আয় করার কম পক্ষে ৫টি পথ খুঁজে পাবেন।

যেমন ধরুন ইউটিউব চ্যালেন। একটি ইউটিউব চ্যালেন ইনকামের ভালো একটি মাধ্যম। তবে ইউটিউব চ্যানেল খুললেন এবং ধনী হয়ে গেলেন বিষয়টা কিন্তু এরকম নয়। ইউটিউব চ্যানেলে যত বেশী পরিশ্রম করতে পারবেন, যত বেশী ইউনিক কাজ করতে পারবেন তত বেশী ইনকাম করতে পারবেন।

এর পরে রয়েছে অনলাইন ব্লগ। বিশ্বাস করুন একটি অনলাইন ব্লগ আয়ের অন্যতম সেরা একটি মাধ্যম। আপনার যেই বিষয়ে আগ্রহ রয়েছে সেই বিষয়ে আর্টিকেল লেখা শুরু করুন, আস্তে আস্তে ইনকাম শুরু হলে সেই টাকা দিয়ে অন্য মানুষের মাধ্যমে আর্টিকেল লিখান, কষ্ট করতে শিখুন সফলতা আপনাকে হাতছানি দিয়ে ডাকবে।

অনলাইন থেকে আয় করার অনেক আরোও অনেক মাধ্যম রয়েছে, মাধ্যমগুল খুঁজে বের করতে হবে এবং নিজের পছন্দ অনুযায়ী কাজ করতে হবে।

#২। পুরাতন জিনিষ বেচা কেনা।

এই ব্যবসাটি আপনি অল্প টাকা দিয়ে শুরু করতে পারেন।

উদাহরন স্বরূপ, আপনার কোনও একবন্ধু তার বাইসেল বিক্রি করতে চায়, আপনি কিনলেন, কিছু কাজ করালেন এবং আবার বিক্রি করে দিলেন।

এই রকম মোবাইল হতে পারে, ল্যাপটপ হতে পারে, ক্যামেরা হতে পারে, মোটর সাইকেল হতে পারে, আস্তে আস্তে ফ্ল্যাট হতে পারে, জমি হতে পারে।

#৩। শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করুন।

শেয়ার বাজার টাকা বানানোর একটি সেরা মাধ্যম কিন্তু এখানে ঝুঁকি বেশী কিন্তু লাভের বিচারে অন্য যে কোন ব্যবসার থেকে অনেক বেশী।

সঠিক সময়ে, সঠিক কোম্পানির শেয়ার কিনতে পারলে টাকা দ্বিগুণ, তিনগুন করতে খুব বেশী সময় লাগবে না। তবে প্রাথমিক অবস্থায় বুজে শুনে বিনিয়োগ করতে হবে।

সর্বোপরি ছাএ অবস্থায় ধনী হতে চাইলে ইগো বাদ দিতে হবে, পরিশ্রম করতে হবে এবং এমন পরিশ্রম করতে হবে যা দেখে অন্যরা শিহরিত হয়ে যায়। – কে এম চিশতি সিয়াম – ইউটিউব লিঙ্ক