গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসায় সফলতা পেতে ৬ টি পরামর্শ মেনে চলুন

গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসায় সফলতা পেতে ৬ টি পরামর্শ মেনে চলুন

গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসায় সফলতা পেতে

গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসায় সফলতা পেতে

গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসায় সাধারণত বাড়িতে থেকে পরিচালনা করা হয়। বাড়ির আরামদায়ক পরিবেশে থেকে পরিচালনা করা যায় বিধায় গ্রহকেন্দ্রিক ব্যবসা গুলো বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।

তবে অন্যান্য ব্যবসার মতো এই ধরনের ব্যবসা গুলোতেও সফলতা পেতে বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হয়। এখানে আমরা গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসায় সহজেই সফলতা পেতে কয়েকটি পরামর্শ তুলে ধরছি। নিচে তা বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

১. একটি বাস্তব সম্মত ব্যবসা পরিকল্পনা তৈরি করুন

ব্যবসা পরিকল্পনাকে ব্যবসার মানচিত্র হিসেবে বিবেচনা করা হয়। কারণ ব্যবসা পরিকল্পনায় একটি নির্দিষ্ট লক্ষ্য নির্ধারণ করে কিভাবে এবং কোন পথে সফল হওয়া যায় তার বিস্তারিত বিবরণ উল্লেখ করা থাকে।

তাই একটি গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসা শুরু করার আগে সমস্ত প্রক্রিয়া গুলো বিশদ বর্ণনা সহ ব্যবসা পরিকল্পনায় লিপিবদ্ধ করা উচিত। এর ফলে ব্যবসা শুরু করার পর ভবিষ্যতের জন্য আপনার কি কি করা উচিত তার একটি বাস্তব সম্মত রুপরেখা পাবেন।

২. আর্থিক পরিকল্পনা

যে কোন ব্যবসা শুরু করার চিন্তা মাথায় আসলে শুরুতেই বিনিয়োগের কথাও চিন্তা করতে হয়। কারণ বিনিয়োগই হলো ব্যবসার মূল হাতিয়ার।

এক্ষেত্রে আপনি যদি একটি গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে কত টাকা বিনিয়োগ করতে হবে তার একটি আনুমানিক হিসাব করা জরুরী। আনুমানিক কত টাকা বিনিয়োগ করতে হবে তা হিসাব করার পর আপনার নিকট সে পরিমাণ টাকা আছে কিনা তা দেখুন।

যদি সে পরিমাণ টাকা না থাকে তাহলে বাকি টাকা কোথা থেকে জোগাড় করবেন তা নিয়ে চিন্তা করুন। পাশাপাশি ব্যবসা শুরু করার পর আয় ব্যয়ের হিসাব কিভাবে পরিচালনা করবেন সে বিষয়েও পরিকল্পনা গ্রহণ করুন।

৩. আইনী কার্যক্রম গুলো সম্পন্ন করুন

ব্যবসা শুরু করতে হলে অবশ্যই সংশ্লিষ্ট দেশের আইন মেনে সকল কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে। এক্ষেত্রে সকল দেশে সকল উদ্যোক্তাকে কিছু ডকুমেন্ট জোগাড় করতে হয়।

আমাদের দেশেও ব্যবসা শুরু করতে লাইসেন্স, ছাড়পত্র, আয়কর সার্টিফিকেট ইত্যাদি কাগজপত্র যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট হতে সংগ্রহ করতে হয়।

তাই একটি গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসা শুরু করতে চাইলে আপনাকে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন, পৌরসভা কিংবা সিটি কর্পোরেশন ও অন্যান্য সরকারী সংস্থার নিকট হতে যাবতীয় সকল প্রকার কাগজপত্র সংগ্রহ করতে হবে।

পড়ুন – ঘরে বসে যে ব্যবসা করা যায়

৪. পরিবারের সদস্য ও বন্ধুদের সমর্থন নিন

ব্যবসাটি শুরু করার পূর্বে পরিবারের সকল সদস্য ও ঘনিষ্ঠ বন্ধুদেরকে ব্যবসাটি সম্পর্কে বিস্তারিত বুঝিয়ে বলুন। তারপর তাদের সমর্থন কামনা করুন।

যে কোন পরিস্থিতিতে তারা আপনার পাশে থাকবে কিনা তাদের নিকট হতে সে প্রতিশ্রুতি গ্রহণের চেষ্টা করুন। তাদের ক্রমাগত সমর্থন দীর্ঘমেয়াদী সাফল্যের জন্য আশ্চর্যজনক ভাবে কাজ করবে।

৫. পরিবারকে প্রাধান্য দিন

গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসা গুলো সাধারণত নিজের বাড়ি থেকে পরিচালনা করা হয়। আর এজন্য বাড়িতে একটি অফিস স্পেস নির্ধারণ করা জরুরী।

তাই অফিস স্পেসের কারণে কিংবা অন্যান্য কার্যক্রম গুলো পরিচালনা করতে গিয়ে পরিবারের সদস্যদের কোন প্রকার অসুবিধা হয় কিনা তা লক্ষ্য করা জরুরী।

কোন প্রকার ঝামেলা যেন না হয় সে জন্য আপনি বাড়ির এক কোণে আলাদা একটি স্থান নির্ধারণ করে ব্যবসার কার্যক্রম গুলো পরিচালনা করতে পারেন।

৬. লক্ষ্য নির্ধারণ করুন

গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসায় সফল হতে হলে শুরুতেই বাস্তব সম্মত ও সহজেই অর্জন করা যাবে এমন লক্ষ্য নির্ধারণ করা প্রয়োজন। শুরুতেই অর্জন করা কঠিন এমন লক্ষ্য নির্ধারণ করবেন না। এক্ষে্ত্রে আপনি বছর বিবেচনায় নিয়ে লক্ষ্য নির্ধারণ করতে পারেন।

অর্থাৎ প্রথমেই আপনি এক বছরের জন্য একটি লক্ষ্য নির্ধারণ করলেন, তারপর এই এক বছরে আপনার লক্ষ্য পূরণ হলে পরের বছরের জন্য আরেকটি লক্ষ্য নির্ধারণ করতে পারেন। এভাবে ধীরে ধীরে লক্ষ্য নির্ধারণ করলে হঠাৎ করেই আপনাকে কঠোর চাপে পরতে হবে না।