গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসায় সফলতা লাভের ১৫ টি সেরা টিপস

গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসায় সফলতা লাভের ১৫ টি সেরা টিপস

গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসায় সফলতা পাওয়ার উপায়

গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসায় সফলতা পাওয়ার উপায়

ছোট ব্যবসা গুলোর মধ্যে গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসা গুলোই বর্তমানে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। ঘরে বসেই ব্যবসা বা গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসায় সুবিধা হলো এই ব্যবসাটি কম পুজিঁ বিনিয়োগ করে শুরু করা যায় এবং আরামদায়ক পরিবেশে থেকে কাজ করা যায়।

এই ব্যবসা গুলোতে সফল হতে হলে কিছু গোপন পরামর্শ গ্রহণ করা জরুরী। বিশেষজ্ঞদের তথ্য অনুযায়ী নিচে এই সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

১. কাজের পরিবেশ তৈরি করুন

গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসায় সাধারণত নিজের বাড়ি থেকে পরিচালনা করতে হয়। তাই আপনার বাড়ির নির্ধারিত স্থানটিতে পেশাদার অফিস সরঞ্জাম ও অন্যান্য আসবাবপত্র দিয়ে সাজিয়ে কাজের একটি সুন্দর পরিবেশ তৈরি করুন।

২. শক্তিশালী টিম তৈরি করুন

একটি ব্যবসায় সাধারণত অনেক গুলো অংশ বিদ্যমান থাকে। যেমন, উৎপাদন বিভাগ, বিক্রয় বিভাগ, মার্কেটিং বিভাগ, হিসাব বিভাগ ইত্যাদি।

আর একজন উদ্যোক্তা স্বাভাবিক ভাবেই সকল বিভাগে দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা সম্পন্ন হন না। তাই আপনি যে বিভাগে অভিজ্ঞ নন সে বিভাগে দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা সম্পন্ন কর্মী নিয়োগ করুন।

আপনি যে বিভাগে অভিজ্ঞ সে বিভাগ নিয়ে কাজ করুন। আর যে বিভাগ গুলোতে অভিজ্ঞ নন সে বিভাগের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট কর্মীদের সাহায্য নিন।

৩. মনোভাব

গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসা গুলোর ক্ষেত্রে অনেকেই মনে করেন যে তিনি বাড়িতে বসে আছেন। এতে কাজের প্রতি এক ধরনের অনিহা তৈরি হয়। ফলে অনেক সময় ব্যবসায় ব্যর্থ হতে হয়।

তাই বাড়িতে বসে আছেন এমন মনে না করে বাড়িতে থেকে আপনি গুরুত্বপূর্ণ কাজ করছেন এমন মনোভাব অবশ্যই বজায় রাখবেন।

পড়ুন – মূলধন ছাড়া গৃহ কেন্দ্রিক ব্যবসা

৪. লজ্জা করবেন না

বাড়িতে থেকে ব্যবসা পরিচালনা করতে অনেকেই লজ্জাবোধ করেন। এক্ষেত্রে সফল হতে হলে একদম্ই লজ্জা করা যাবে না।

৫. সফলতা অর্জন করা যাবে এমন ব্যবসার ধারণা

আপনার ধারণাটি নিয়ে ব্যবসা শুরু করে সফল হওয়া যাবে কিনা তা যাচাই বাচাই ও গবেষণা করুন। সফল হবেন এমন আত্নবিশ্বাস থাকলে তবেই শুরু করুন।

৬. ব্যবসাটিকেই সবচেয়ে বেশি অগ্রাধিকার দিন

কাজের একটি সময়সূচি তৈরি করুন এবং সব কিছুর উর্ধ্বে আপনার ব্যবসাটিকেই সবচেয়ে বেশি অগ্রাধিকার দিন।

৭. আপনি কি করছেন সে সম্পর্কে জানুন

সৃজনশীল উদ্যোক্তারা ব্যবসা শুরু করার পূর্বেই সে কি করতে যাচ্ছে সে সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেয়। অর্থাৎ তার ব্যবসাটি শুরু করার পর তাকে কি কি করতে হবে সে সম্পর্কে সে জেনে নেয়। আর ব্যবসায় সাফল্য লাভ করতে এটি জানা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

৮. সৎ থাকুন

গৃহকেন্দ্রিক ব্যবসা শুরুর আগে কোন জিনিসটির প্রতি আপনার আগ্রহ সবচেয়ে বেশি তা নির্ণয় করে সে বিষয়টিকে সামনে রেখে ব্যবসা শুরু করুন। বাড়িতে থেকে কাজের অভ্যাস গড়ে তুলে নিজেকে সৎ রাখুন।

৯. লক্ষ্য সম্পর্কে সচেতন থাকুন

‍কাজ থেকে নিজেকে কিছুতেই বিচ্ছিন্ন করবেন না। সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নির্ধারণ করে নিয়মিত কাজ করে যান।

১০. গ্রাহকদের সাথে যোগাযোগ রাখুন

যে কোন ব্যবসায় সফলতার মূল ভিত্তি হলো গ্রাহক। তাই সফলতা অর্জন করতে হলে অবশ্যই গ্রাহকদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রাখতে হবে।

কিন্তু অনেক সময় উদ্যোক্তারা ব্যস্ততার কারণে গ্রাহকদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারেন না। এক্ষেত্রে ইমেইল বা ফোনে গ্রাহকদের সাথে যোগাযোগ রাখা যেতে পারে।

১১. স্থানীয় আইন সম্পর্কে সচেতন হোন

সাধারণত একেক এলাকায় একেক আইন বিদ্যমান থাকে। যেমন, সিটি কর্পোরেশনে যে আইন পৌরসভায় সে আইন বিদ্যমান নাও থাকতে পারে।

আবার পৌরসভায় যে আইন ইউনিয়ন পরিষদে সে আইন নাও থাকতে পারে। তাই স্থানীয় আইন সম্পর্কে সচেতন থাকতে হবে।

অন্যথায় লেনদের, সময় ব্যবস্থাপনা ও কর্মীদের বাহিরে কাজ করতে পাঠালে নানা ধরনের ঝামেলা তৈরি হতে পারে।

১২. পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা

কাজের স্থানটি সব সময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন।

১৩. সৎ কর্মী নিয়োগ করুন

কর্মী নিয়োগের ব্যাপারে সচেতন থাকুন। এক্ষেত্রে অবশ্যই সৎ ও দক্ষতাকে প্রাধান্য দিন।

১৪. কাজের স্থানটি পরিবার থেকে দূরে রাখুন

আপনার ব্যবসায়িক কাজের স্থানটি পরিবারের সদস্যরা যে স্থানে থাকে সে স্থান থেকে দূরে রাখুন। সে স্থানটি শুধুমাত্র ব্যবসায়িক কাজে ব্যবহারের জন্য হতে হবে।

১৫. মার্কেটিং

অফলাইন মার্কেটিং এর পাশাপাশি সমান তালে অনলাইন মার্কেটিংও চালিয়ে যেতে হবে।