কো-ওয়ার্কিং অফিস এর কিছু সুবিধা

কো-ওয়ার্কিং অফিস এর কিছু সুবিধা

কো-ওয়ার্কিং অফিস এর কিছু সুবিধা

কো-ওয়ার্কিং অফিস এর কিছু সুবিধা

কো-ওয়ার্কিং অফিস এর অনেক সুবিধা রয়েছে। এটি মূলত একে অপরের জন্য অনুপ্রেরণা এবং সফলতার পথে একে অপরের পরামর্শদাতা। বাংলাদেশের জন্য কো-ওয়ার্কিং একটি মোটামুটি নতুন ধারণা যা দিন দিন অত্যন্ত জনপ্রিয় হচ্ছে। বিশেষ করে তরুণ উদ্যোক্তা, ছোট কোম্পানি ও ফ্রিল্যান্সাররা কো-ওয়ার্কিং থেকে উপকৃত হবেন। প্রয়োজনীয়তা অনুসারে কাজের জায়গা বাছাই করতে পারেন।

কো-ওয়ার্কিং এর ইতিহাস বেশী দিনের না হলেও এর জনপ্রিয়তা এখন আকাশচুম্বী। আসুন কো-ওয়ার্কিং অফিস এর কিছু সুবিধা এবং এটি ব্যবহারকারীদের জন্য কীভাবে কার্যকর হবে তা এক নজরে দেখে নেওয়া যাক।

কো-ওয়ার্কিং অফিস এ অফিস ব্যয় কম

কো-ওয়ার্কিং অফিস তরুণ উদ্যোক্তা এবং স্টার্টআপগুলিকে তাদের নিজস্ব অফিস স্থাপনের চিন্তা না করে পুরোপুরি সজ্জিত অফিসে কাজ করার সুযোগ দেয়। একটি অফিস স্থাপন করা ক্লান্তিকর এবং যার জন্য প্রচুর টাকার দরকার হয়।

কো-ওয়ার্কিং অফিসের বড় সুবিধা হলো ন্যূনতম বিনিয়োগে অফিসিয়াল পরিবেশে কাজ করার সুযোগ। কো-ওয়ার্কিং অফিসে কাজ করে আপনি অফিস স্থাপনের ব্যয় না করে নিজের ব্যবসা পরিচালনা করতে পারবেন।

একটি কো-ওয়ার্কিং অফিসে স্পেস পেতে আনুমানিক আপনাকে ৬ থেকে ৭ হাজার টাকা খরচ করতে হতে পারে। যা সাইজ ও স্থান ভেদে কম বেশী হবে। কিন্তু আপনি যদি নিজের একটি অফিস খুলতে চান, তা যতই ছোট হোক না কেন আপনাকে কম পক্ষে ২ থেকে ৩ লাখ টাকা খরচ করতে হবে। তাই অফিস খরচ কমনোর জন্য কো-ওয়ার্কিং অফিস এর জুড়ি নেই।

নেটওয়ার্কিংয়ের সম্ভাবনা

কো-ওয়ার্কিং অফিসগুলো আপনি কাজ করলে আপনার নেটওয়ার্কিংয়ের সম্ভাবনা বহুগুন বেড়ে যাবে। বিভিন্ন ব্যবসার, বিভিন্ন কাজের, বিভিন্ন ব্যাকগ্রাউন্ডের নতুন লোকের সাথে সাক্ষাত করলে আপনার জ্ঞান ও নেটওয়ার্ক দু’ই বাড়বে।

যখন অনেক দক্ষ লোকেরা কর্মক্ষেত্রে একই স্থান ভাগ করে নেয়, তখন অনেক চিন্তাবিদ, প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী এবং উদ্যোক্তাদের সাথে দেখা ও তাদের কাছ থেকে কিছু শেখার সম্ভাবনা থাকে।

অনুপ্রেরণা

কো-ওয়ার্কিং অফিসে অসংখ্য পেশাদার, স্টার্টআপস, ফ্রিল্যান্সার, উদ্যোক্তারা একে অপরের সাথে তাদের ব্যবসাযয়িক অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন। আপনিও যদি সেই পরিবেশে থাকেন তবে আপনি কিছু শিখতে ও শেখাতে পারবেন।

অন্যকে সহযোগিতা করা এবং অন্যের কাছ থেকে নতুন দক্ষতা শেখা

কো-ওয়ার্কিং অফিসে কাজ করলে আপনি অন্যকে সহযোগিতা করতে পারবেন এবং আপনার প্রয়োজনে অন্যের কাছ থেকে নতুন দক্ষতা শিখতে পারবেন।

বেশী কাজ বেশী সাফল্য

স্বাভাবিক ভাবেই যখন ৩/৪ টি দক্ষ টিম একসাথে কাজ করে তখন তাদের মধ্যে বেশীক্ষন কাজ করার একটি মেন্টালিটি থাকে। কো-ওয়ার্কিং অফিসে আপনি আপনার নিজের কাজ করবেন এবং অন্যরাও তাদের কাজ করবে এবং দিন দিন কম খরচে সবারই উপকার হবে।

পেশাদার ব্যস্ততার সাথে ব্যক্তিগত অফিস উপভোগ করুন

আপনি যখন একটি কো-ওয়ার্কিং অফিসে আপনার কাজ করবেন তখন আপনি যেমন ব্যস্ত থাকবেন, ঠিক তেমনি ব্যক্তিগত অফিসও উপভোগ করতে পারবেন। এ যেন সাধ্যের মধ্যে সবটুকু সুখ।

কাজের ক্ষেত্রে নমনীয়তা

কো-ওয়ার্কিং অফিসে কাজের জায়গাগুলির পরিবেশ খুবই কাজ বান্ধব এবং নমনীয়। তাছাড়া কাজ করার জন্য কোন কঠোর নিয়মও থাকে না। আপনি কারো কাছে দায়বদ্ধ না হয়ে নিজের ইচ্ছানুযায়ী ডেস্ক বুক করতে পারেন এবং নিজের ইচ্ছা অনুযায়ী কাজ করতে পারেন।

উচ্চ গতির ইন্টারনেট

আপনি ইন্টারনেট সম্যাসা থেকে রেহাই পারেন। কেননা কো-ওয়ার্কিং অফিসে উচ্চ গতির ইন্টারনেট ব্যবহার করা হয় এবং সেই অনুযায়ী আপনার খরচও কম হবে।