কথার মাধ্যমে মন জয় করুন

কথার মাধ্যমে মন জয় করুন

কথার মাধ্যমে মন জয় করুন

কথার মাধ্যমে মন জয় করুন

সফল হতে চাইলে আপনাকে এমন একজন ব্যক্তি হতে হবে যাকে সবাই ভালবাসবে, পছন্দ করবে এবং বিশ্বাস করবে। অন্যের ভালবাসা ও বিশ্বাস এমন একটি বিষয় যা চাইলেই জোড় করে আদায় করতে পারবেন না। টাকা দিয়েও এই সব কেনা যায় না। একমাএ ব্যবহার পারে অন্যের মনে জায়গা করে নিতে। ব্যবহারের অন্যতম একটি মাধ্যম মানুষের মুখের কথা।

 

এই মুখের কথার অনেক দাম। কেননা এই কথার জন্যই একে অপরের বিরুদ্ধে মামলা দেয়, মারামারি করে, এমনকি সামন্য কথা কাটাকাটির জেড়ে একে অপরকে মেরে ফেলে। আবার কথার জন্যই একটি চলমান যুদ্ধও থেমে যেতে পারে।

 

মানুষের মুখের কথা ও বন্দুক থেকে বেরানো গুলি একই বিষয়। কেননা এই দুই জিনিষই আর কখনো ফেরত নেওয়া যায় না। আপনি একজনকে পিস্তল দিয়ে গুলি করার পর বলতে পারবেন না আমি আমার গুলি ফিরিয়ে নিলাম, ঠিক তেমনি মুখ থেকে বেরনো কথা আর ফেরত নেওয়া যায় না।

 

কথার মাধ্যমে অন্যের মন জয় করা কখনই সহজ বিষয় না।

এই ক্ষেএে আপনাকে কথা বলার পাশাপাশি কথা বেশী শোনার অভ্যাস করতে হবে। যেমন ধরুন যখন কেউ আপনার সাথে কথা বলছে, তখন তার কথা মনোযোগ নিয়ে শুনুন। এতে তিনি আরো কথা বলে আনন্দ পাবে এবং বুজতে পারবে আপনি তাকে গুরুত্ব দিচ্ছেন।

 

যখন কোন মানুষ বুজতে পারে যে তাকে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে তখন তিনি ঐ পরিস্থিতিকে আরো উপভোগ করে। এর ফলে আপনি যখন কথা বলবেন তখন আপনার কথা অধিক গুরুত্ব সহকারে অন্যরা শুনবে। ফলস্বরূপ, আপনি যা বলতে বা বোঝাতে চাচ্ছেন তা অনেক সহজ হয়ে যাবে।

 

এছাড়া যখন কথা শুনছেন বা বলছেন তখন তার চোখের দিকে তাকিয়ে কথা বলুন, এবং কথা বলা বা শোনা অবস্থায় কোন কাজ করবেন না। অনেকই আছে কথা শোনার সময় মোবাইল ব্যবহার করে, হাতে থাকা যে কোন বস্তু নিয়ে নাড়ানাড়ি করে, কিংবা নখ কামড়ায়, ইত্যাদি বিষয়গুলো এড়িয়ে চলুন।

 

কথার উত্তর দেওয়ার সময় একটু ভেবে উত্তর দিন। আপনি ১০টি বাক্য ঠিক বললেন কিন্তু এই ১০টি বাক্যের মধ্যে একটি শব্দ যদি আপনার শ্রোতাকে বিব্রত করে তবে আপনার এই ১০টি বাক্যের কোন দামই থাকবে না বরং আপনার সম্পর্কে নেতিবাচক চিন্তা আসবে। তাই যা বলতে চান একটি ভেবে বলুন। এছাড়া কথা বলার সময় আপনার হাত বা পা বা শরীরের কোন অংশ যেন অন্যের গায়ে না লাগে তা নিশ্চিত করুন।

 

আপনাকে মনে রাখতে হবে, আপনি যা বলছেন তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ কিন্তু আপনি কিভাবে তার সামনে এই একই কথা বলছেন তা অধিক গুরুত্বপূর্ণ।

 

কোন চাকরির ইন্টারভিউ দেওয়ার সময় একই মানের প্রার্থী অনেক থাকে, কিন্তু চাকরি হয় এক বা দুই জনের। বাকিদের মেধা কম তাই বলে চাকরি হয় না বিষয়টা কিন্তু এ রকম নয়।

 

অনেক সময় দেখা যায় কম মেধা সম্পন্ন প্রার্থীর চাকরি হয় শুধু মাএ তার ভালো ব্যবহারের জন্য। ঐ প্রার্থী জানে কিভাবে কথা দিয়ে মন জয় করা যায়। সব কথার সাথে হাঁ বলা, কিংবা না বলা কখনই ভালো কিছু না।

 

কথা বলার সময় সামনের মানুষটার মন বোঝার চেষ্টা করতে হবে। ভালো কাজে প্রশংসা করতে হবে, তবে তা যেন তোষামোদি না হয়। ঠিক তেমনি খারাপ কাজে ভুল ধরিয়ে দিতে হবে, কিন্তু তা যেন অন্যকে ছোট করা না হয়।  

কে এম চিশতি সিয়াম // ইউটিউব লিঙ্ক 

আরো পড়ুন –