একটি ব্যবসা চালাতে হলে উদ্যোক্তার যে ৫ টি সক্ষমতা দরকার

ব্যবসা চালাতে হলে উদ্যোক্তার যে ৫ টি সক্ষমতা দরকার

ব্যবসা চালাতে উদ্যোক্তার সক্ষমতা

ব্যবসা চালাতে উদ্যোক্তার সক্ষমতা

সফল উদ্যোক্তারা তাদের জন্য কোন ব্যবসাটি সঠিক তা জানেন। তাদের ব্যবসার বাজার পরিচালনা ও আর্থিক লক্ষ্য বাস্তবায়ন করার ক্ষমতা রয়েছে। একটি বাস্তব সম্মত ব্যবসা রিকল্পনা একটি সফল ব্যবসা চালানোর প্রধান কৌশল। আর সকল সফল উদ্যোক্তাই বাস্তব সম্মত ব্যবসা পরিকল্পনা নির্ধারণে বেশ পারদর্শী হয়ে থাকেন। এখানে আমরা একটি ব্যবসা চালাতে হলে যেকোন ব্যক্তির যেসব সক্ষমতা দরকার তা নিয়ে আলোচনা করব। নিচে তা বিস্তারিত বর্ণনা দেওয়ার চেষ্টা করছি।

সৃজনশীলতা

একজন সফল উদ্যোক্তা হিসেবে ব্যবসা পরিচালনার জন্য সৃজনশীল হওয়া অত্যন্ত জরুরী। সৃজনশীল চিন্তা ভাবনা গুলো ব্যবহার করে এবং অভিনব ধারণা গুলো বাস্তবায়নের মাধ্যমে যে কেউ একটি সফল ব্যবসার উদ্যোগ গ্রহণ করতে পারেন। তাছাড়া সফল উদ্যোক্তারা তাদের সৃজনশীল চিন্তা ভাবনার মাধ্যমে ব্যবসায়িক যে কোন সমস্যা মুহূর্তের মধ্যে সমাধান করতে পারেন। পড়ুন – সফল উদ্যোক্তা হওয়ার ৯টি উপায়

ব্যবসায়িক মানসিকতা

একজন উদ্যোক্তা তার নিজস্ব ব্যবসাটি পরিচালনার জন্য দৃঢ় সংকল্প ও প্রতিশ্রুতিশীল হয়ে থাকেন। পাশাপাশি একজন উদ্যোক্তার সাংগঠনিক, বিপণন, বিক্রয়, অর্থ ইত্যাদি সংক্রান্ত ব্যাপক দক্ষতা থাকে। কিছু কিছু উদ্যোক্তার প্রাকৃতিক ভাবেই এই প্রতিভা গুলো থাকে। আর কিছু কিছু উদ্যোক্তাকে এই দক্ষতা গুলো বিকশিত করতে ব্যবসায়িক কোর্স গুলো সম্পন্ন করতে হয়।

ব্যক্তিগত বৈশিষ্ট্য

সফল উদ্যোক্তাদের কিছু ব্যক্তিগত বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা সফল ভাবে ব্যবসা পরিচালনার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই বৈশিষ্ট্য গুলোর মধ্যে রয়েছে আন্ত:ব্যক্তিগত দক্ষতা, সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতা, আত্ননিয়ন্ত্রণ ইত্যাদি। প্রতিটি সফল উদ্যোক্তাকেই সঠিক তথ্যের ভিত্তিতে যে কোন বিষয়ে ভালো ভাবে সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষমতা অর্জন করতে হয়। আর অন্যদেরকে নিয়ে কাজ করতে হয় বলে উদ্যোক্তাদেরকে আন্ত:ব্যক্তিগত দক্ষতা অর্জন করতে হয়। তাছাড়া লিখিত ও মৌখিক ভাবে যোগাযোগের দক্ষতাও থাকতে হবে।

ব্যবসা ব্যবস্থাপনা

একজন সফল উদ্যোক্তাকে নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে কাজ সম্পন্ন করা, আর্থিক বাধ্যবাধকতা, কর্মচারীদের সাথে সম্পর্ক, যে কোন অপ্রত্যাশিত চাপ পূর্ণ পরিস্থিতি সামলানো ইত্যাদি দক্ষতার সাথে পরিচালনা করতে হয়।

একজন উদ্যোক্তাকে ব্যবসা পরিচালনা করার ক্ষমতা অর্জনের সাথে সাথে ব্যবসার সাথে সঙ্গতিপূর্ণ প্রযুক্তি গুলো সম্পর্কেও জ্ঞান অর্জন করতে হয়। ব্যবসা ব্যবস্থাপনা মূলত এমন একটি কৌশল যা আপনার ব্যবসার বৃদ্ধিতে সহায়তা করতে পারে।

অবশ্যই পড়বেন – ব্যবসা প্রকল্প নির্ধারনে কারিগরী সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের প্রয়োজনীয়তা

বিপণন

কার্যকর ভাবে যে কোন সমৃদ্ধ ব্যবসা বজায় রাখতে হলে বিপণন একান্ত অপরিহার্য। বিপণন সম্ভাব্য গ্রাহকদের নিকট আপনার প্রতিষ্ঠানের বার্তাটি পৌছেঁ দিতে সহায়তা করে থাকে।

যে কোন উদ্যোক্তারই মূল লক্ষ্য থাকে ব্যবসার বাজার গুলোতে পৌছাঁনো এবং তাদের পণ্য বা পরিষেবা গুলো সম্পর্কে সম্ভাব্য গ্রাহকদেরকে অবহিত করা। আর এটি করতে হলে বিপণন কৌশল গুলো বিকশিত করা খুবই গুরুত্বপূর্ন।

বিপণন বিশ্লেষণ সম্পাদন এবং টার্গেট বাজার সংজ্ঞায়িত করতে পারলেই কেবল একটি বিপণন কৌশল বিকশিত করা সম্ভব। তাই একজন উদ্যোক্তার সঠিক বিপণন দক্ষতা থাকা আবশ্যক।