একজন ব্যবস্থাপক নিয়োগের পূর্বে যে ৭ টি নেতৃত্বের গুণ দেখা উচিত

ব্যবস্থাপক নিয়োগের পূর্বে যে ৭ টি নেতৃত্বের গুণ দেখা উচিত

ব্যবস্থাপক নিয়োগের পূর্বে যে ৭ টি নেতৃত্বের গুণ দেখা উচিত

ব্যবস্থাপক নিয়োগের পূর্বে যে ৭ টি নেতৃত্বের গুণ দেখা উচিত

একজন একজন ব্যবস্থাপক প্রতিষ্ঠান গড়া ও ভাঙ্গার ক্ষমতা রাখেন। সফল ব্যবস্থাপকরা তাদের কর্মীদেরকে পূর্ণ সম্ভাব্যতা অর্জনে এবং প্রতিষ্ঠান গুলোকে তাদের লক্ষ্যে পৌছঁতে সহায়তা প্রতিষ্ঠান গড়া ও ভাঙ্গার ক্ষমতা রাখেন। মহান ব্যবস্থাপকরা তাদের কর্মীদেরকে পূর্ণ সম্ভাব্যতা অর্জনে এবং প্রতিষ্ঠান গুলোকে তাদের লক্ষ্যে পৌছঁতে সহায়তা করে থাকেন। অপরদিকে একজন অদক্ষ ও স্বৈরাচার ব্যবস্থাপক প্রতিষ্ঠানের সুনাম ক্ষুণ করার জন্য যথেষ্ট।

আপনি যদি আপনার প্রতিষ্ঠানের সেরা কর্মচারীদেরকে হারাতে না চান তাহলে ব্যবস্থাপক হিসেবে যথাযথ ব্যক্তিদেরকে নিয়োগ দেওয়া গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যখন একজন ব্যবস্থাপক নিয়োগের জন্য সচেষ্ট হবেন তখন আপনাকে নিচের ৭ টি গুণাবলী বিদ্যমান রয়েছে এমন লোকদেরকে নির্বাচন করতে হবে। নিচে একজন স ফল ব্যবস্থাপকের যে ৭ টি গুণাবলী রয়েছে সে সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

১. সততা

যে কোন প্রতিষ্ঠানে একজন ব্যবস্থাপক নেতা হিসেবে আবিভূত হন। আর নেতা যদি সৎ না হন তাহলে কোন টিমই তাকে বিশ্বাস করে না। যদি শ্রমিকরা জানতে পারেন যে তাদের নেতা সৎ নন তাহলে তারা তাদের নেতাকে আস্থা সহকারে বিশ্বাস করতে পারেন না।

আরো পড়ুন – উদ্যোক্তা ও ব্যবস্থাপকের মধ্যে পার্থক্যসমূহ

ব্যবসার ক্ষেত্রে সততা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। একজন সৎ নেতা তার বাকি টিম গুলোকেও সৎ হতে উদ্ভূদ্ধ করে থাকেন। তাই একজন ব্যবস্থাপক নিয়োগের ক্ষেত্রে খোলাখুলি ও স্বচ্ছ এমন লোকদের সন্ধান করুন।

২. যোগাযোগ দক্ষতা

কখন কী করা দরকার ব্যবস্থাপকদেরকে তা জানতে হয়। আর এ জন্য তাদেরকে সম্পূর্ণ ভাবে তাদের টিমের সাথে যোগাযোগ করার ক্ষমতা অর্জন করতে হয়।

প্রত্যেক মহান বা সফল ব্যবস্থাপকদের চমৎকার যোগাযোগ দক্ষতা রয়েছে। তারা মৌখিক ও লিখিত উভয় ভাবেই যোগাযোগ করতে সক্ষম।

৩. আত্নবিশ্বাস

ব্যবস্থাপকদেরকে নিশ্চিত হতে হবে যে তারা যে সিদ্ধান্ত গুলো তৈরি করছেন তা সঠিক। সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর ব্যবস্থাপকদেরকে তাদের টিমকে সন্তুষ্ট করার সক্ষমতা থাকতে হবে। আর আত্নবিশ্বাস ব্যবস্থাপকরা তার সকল টিমকে সহজেই অনুপ্রাণিত করতে পারেন।

বিভিন্ন সময়ে সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে নানা বাধা বিপত্তি অতিক্রম করতে হয়। যেমন- আদালত আপনার বিরুদ্ধে রুল জারি করতে পারে। নতুন কোন প্রতিদ্বন্দ্বী আপনার ব্যবসার বাজার দখল করতে পারে। আবার একটি নতুন পণ্য বাজারে ছেড়ে গ্রাহকদের নিকট হতে ভালো সাড়া নাও পেতে পারেন।

আর এই ধরনের বিপত্তি গুলোর ক্ষেত্রে একজন ব্যবস্থাপককে অবশ্যই আতœবিশ^াসের সাথে তার টিমকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

৪. দায়িত্ব

ভাল ব্যবস্থাপকরা বুঝতে পারেন যে তারা দায়িত্ব প্রাপ্ত। অর্থাৎ তারা প্রত্যেকের কার্যকারিতা, ব্যর্থতা ও সফলতার জন্য দায়ী। তাই তাদেরকে তাদের কর্মীদের উপর নজর রাখতে হয়। যেন তারা ভালো কর্মী হয়ে উঠতে পারে। পাশাপাশি একজন ব্যবস্থাপক তার কর্মীদেরকে পেশাগত ভাবে বিকশিত হতে নানা ভাবে সহযোগীতা করে থাকেন।

৫. সহমর্মিতা

সহমর্মিতার গুরুত্ব বুঝে এমন প্রার্থীদেরকে ব্যবস্থাপক হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার জন্য বিবেচনা করুন। যদি সহমর্মিতা না থাকে তাহলে একজন ব্যবস্থাপক কিছুতেই তার অধীনস্থ কর্মীদের মতামতকে প্রাধান্য দিবেন না। ফলে অপ্রীতিকর কোন কিছু ঘটে যাওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়।

৬. সৃজনশীলতা

আপনার কোম্পানীকে পরবর্তী স্তরে নিয়ে যেতে চান ? তাহলে সৃজনশীল দক্ষতা সম্পন্ন ব্যবস্থাপক নিয়োগ করুন। সৃজনশীল দক্ষতা সম্পন্ন মানুষ যে কোন জটিল সমস্যা সমাধান করতে পারেন। তাই সৃজনশীল ভাবে যে কোন সমস্যা সমাধানে দক্ষ এমন লোকদেরকে ব্যবস্থাপক হিসেবে নিয়োগের জন্য সন্ধান করুন।

৭. আশাবাদী

আমাদের প্রত্যেককে সময়ের কাজ সময়ে করার জন্য সংগ্রাম করতে হয়। তেমনি ব্যবসার ক্ষেত্রে ব্যবস্থাপকদেরকেও সময়ের কাজ সময়ে সম্পন্ন করতে হয়। কিন্তু বিভিন্ন কারণে অনেক সময় সময়ের কাজ সময়ে সম্পন্ন করা যায় না। এক্ষেত্রে হতাশ হলে চলবে না। এ জন্য সর্বদা আশাবাদী ও ইতিবাচক মানুষদেরকে ব্যবস্থাপক হিসেবে নিয়োগ করতে হবে।