উৎপাদনমুখী ব্যবসা শুরু করার প্রাথমিক ধাপ সমূহ

উৎপাদনমুখী ব্যবসা শুরু করার প্রাথমিক ধাপ সমূহ

উৎপাদনমুখী ব্যবসা শুরু করার প্রাথমিক ধাপ সমূহ

উৎপাদনমুখী ব্যবসা শুরু করার প্রাথমিক ধাপ সমূহ

ব্যবসার জগতে উৎপাদনমুখী ব্যবসা গুলোই সবচেয়ে বেশি লাভজনক। তবে যে কোন ব্যবসার মতোই উৎপাদনমুখী ব্যবসা শুরু করার জন্যও কিছু প্রাথমিক ধাপ অতিক্রম করতে হয়। আর এই প্রাথমিক ধাপ সমূহ সফলতার সাথে অতিক্রম করতে পারলে যে কোন ধরনের উৎপাদনমুখী ব্যবসায় সহজেই সফল হওয়া যায়। নিচে উৎপাদনমুখী ব্যবসা শুরু করার প্রাথমিক ধাপ সমূহ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

সঠিক মানুষদের নিকট হতে পরামর্শ গ্রহণ করুন

যে কোন উৎপাদনমুখী ব্যবসা আপনি চাইলে নিজে নিজেই এগিয়ে নিতে পারবেন না। এক্ষেত্রে আপনার ব্যবসার সফলতার জন্য অভিজ্ঞদের নিকট হতে পরামর্শ গ্রহণ করা জরুরী। পাশাপাশি আপনার ব্যবসাকে কেন্দ্র করে একটি শক্তিশালী নেটওয়ার্কের প্রয়োজনীয়তাও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ব্যক্তিদের সাথে নেটওয়ার্ক গড়ে তুলতে পারলে সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে নতুন নতুন মার্কেটিং কৌশল অবলম্বন করা সহজ হবে। তাছাড়া আপনি যদি নতুন কোন বাজার ধরতে চান তাহলে সেক্ষেত্রে তারা আপনাকে বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা করতে পারবেন। অনলাইন এবং অফলাইন উভয় ক্ষেত্রেই আপনি এই নেটওয়ার্ক তৈরী করতে পারেন।

গবেষণা করুন

আপনি যদি একটি উৎপাদনমুখী ব্যবসা শুরু করতে চান তাহলে আপনার নির্বাচিত পণ্যের চাহিদা ও বাজার সম্পর্কে গবেষণা করতে হবে। আপনি যে এলাকায় ব্যবসা শুরু করতে চান সে এলাকায় যে পণ্যের চাহিদা সবচেয়ে বেশি সে পণ্যটি উৎপাদনের মাধ্যমে ব্যবসা শুরু করার চেষ্টা করুন। তাছাড়া আপনার ব্যবসার সম্ভাব্য গ্রাহকদের সম্পর্কেও গবেষণা করে নিন।

ব্যবসার অবস্থান

যে কোন ব্যবসার ক্ষেত্রে সে ব্যবসার অবস্থান খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর যে কোন উৎপাদনমুখী ব্যবসার সফলতা সে ব্যবসার অবস্থানের উপর অনেকাংশে নির্ভর করে।

এক্ষেত্রে সকল ধরনের যানবাহন নির্বিঘেœ যাতায়াত করতে পারে এমন স্থান বাছাই করতে হবে। অন্যথায় পণ্য ও কাচাঁমাল আনা নেওয়া এবং কর্মীদের যাতায়াতে সমস্যা তৈরী হতে পারে। তাছাড়া বাছাইকৃত স্থানটি একটি জনবহুল এলাকায় হওয়া আবশ্যক।

প্রযুক্তির সাথে থাকুন

বর্তমানে যে কোন ব্যবসার সাফল্যের ক্ষেত্রে প্রযুক্তির ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই উৎপাদন ব্যবসার মালিক হিসেবে আপনাকে প্রযুক্তিগত সকল সুযোগ সুবিধা গুলো গ্রহণ করতে হবে। প্রযুক্তি আপনার ব্যবসাটিকে ঝুকিঁ এড়িয়ে আরো বেশি কার্যকরী হতে সহায়তা করবে। তাছাড়া অনেক ক্ষেত্রে প্রযুক্তি ব্যবহারের আপনার কোম্পানীর কাজের গতি বৃদ্ধি করে সময়ের অপচয় রোধ করতে সক্ষম হতে পারেন।

উদাহরণস্বরুপ, আপনি যদি আপনার ফ্যাক্টরীতে একটি ম্যানুয়াল মেশিনের পরিবর্তে অটোমেটিক মেশিন স্থাপন করেন তাহলে এটি অনেক বেশি দ্রুত কাজ সম্পন্ন করতে সক্ষম হতে পারে। পাশাপাশি এর ফলে নির্দিষ্ট পণ্যটি উৎপাদন করতে কম সময় খরচ হতে পারে।

আরো পড়ুন – ছোট ও মধ্যম বিনিয়োগে ব্যবসার ধারনা

সকল কাগজপত্র সংগ্রহ করুন

যে কোন ব্যবসা শুরু করতে আইনি কিছু পদক্ষেপ সম্পন্ন করা জরুরী হয়ে পরে। তাই আপনার ব্যবসাটি শুরু করতে যে সকল কাগজপত্রের প্রয়োজন সে সকল কাগজপত্র সংগ্রহ করুন। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদ অথবা পৌরসভা অথবা সিটি করপোরেশন অফিস থেকে আপনার ব্যবসার ট্রেড লাইসেন্স গ্রহণ করুন। পাশাপাশি সরকারী বিধি মোতাবেক টেক্স সার্টিফিকেট ও অন্যান্য কাগজপত্র গ্রহণ করুন।

সঠিক টিম নির্বাচন করুন

আপনার ব্যবসার বিভিন্ন বিভাগ পরিচালনার জন্য যে সকল লোক নিয়োগ করবেন সেক্ষেত্রে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করুন। কারণ তাদের উপরই আপনার ব্যবসার সফলতা ও ব্যর্থতা নির্ভর করবে। এক্ষেত্রে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ও কাজের প্রতি নিবেদিত লোকদেরকে নিয়োগ করতে হবে। অন্যথায় ভুল লোকদেরকে ভুল জায়গায় দায়িত্ব প্রদান করলে হিতে বিপরীত হতে পারে।

একটি বাস্তবসম্মত পরিকল্পনা গ্রহণ করুন

একটি বাস্তবসম্মত ব্যবসা পরিকল্পনা বিনিয়োগকারীদের আর্কষণ করার পাশাপাশি ব্যবসার বাজার ধরতে সহায়ক ভুমিকা পালন করে থাকে। তাই যে কোন উৎপাদনমুখী ব্যবসা শুরুর পূর্বে একটি বাস্তবসম্মত ও কঠিন ব্যবসা পরিকল্পনা প্রণয়ন করা জরুরী।