উদ্যোক্তা হতে চান? প্রথমেই নিজেকে এই ৫ টি প্রশ্ন করুন

প্রথমেই নিজেকে এই ৫ টি প্রশ্ন করুন যদি আপনি উদ্যোক্তা হতে চান

উদ্যোক্তা হতে চান

উদ্যোক্তা হতে চান

উদ্যোক্তা হতে হলে নানা চরাই উৎরাই পার করতে হয়। উদ্যোক্তারা সাধারণত নিজে নিজে ভালো কিছু করার উদ্দেশ্যে ব্যবসা শুরু করে থাকেন। আর ব্যবসায় সফল হতে হলে অত্যন্ত চাকচিক্যময় ও আকর্ষণীয় ভাবে ব্যবসাটি শুরু করতে হয়। যাতে সহজেই গ্রাহকরা আকৃষ্ট হতে পারে।

কিন্তু সফল হতে হলে এই গুলোই যথেষ্ট নয়। চাকচিক্য ও আকর্ষণীয়তার পাশাপাশি সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা গ্রহণ করে সঠিক পথে এগিয়ে গেলেই ব্যবসায় সফল হওয়া যেতে পারে।

আর আপনি সঠিক পথে রয়েছেন কিনা তা জানতে আপনার নিজেকে কিছু সাধারণ প্রশ্ন করতে পারেন। এখানে আমরা উদ্যোক্তা হিসেবে আপনি সঠিক পথে রয়েছেন কিনা তা জানতে নিজেকে যে প্রশ্ন গুলো করতে পারেন সে সম্পর্কে আলোচনা করবো। ব্যবসার ধারনা খুঁজে না পেলে এই আর্টিকেলটি পড়ুন – ১২০টি লাভজনক বিজনেস আইডিয়া

১. আপনার কি সঠিক ব্যবসার ধারণা আছে?

আপনার নিকট কি কোন ব্যবসার ধারণা (business ideas) আছে? যদি আপনার একটি ব্যবসার ধারণা থাকে তাহলে আপনার কাছে মনে হতে পারে এই ব্যবসাটি শুরু করে আপনি গ্রাহকদের আকৃষ্ট করতে পারবেন। কিন্তু বাস্তবে তা নাও হতে পারে।

তাই আপনার ব্যবসার ধারণাটি গ্রাহকদেরকে কতটা প্রভাবিত করতে পারবে তা জানতে আপনাকে কিছুটা পরীক্ষা নিরীক্ষা চালাতে হবে। এক্ষেত্রে আপনি গ্রাহকদের প্রতিক্রিয়া জানার চেষ্টা করুন। পাশাপাশি পরিবারের সদস্য ও বন্ধুদেরকেও এই বিষয়ে জিজ্ঞাসা করতে পারেন।   

পরীক্ষা নিরীক্ষার পর যদি মনে হয় যে তা গ্রাহকদেরকে প্রভাবিত করতে পারবে তাহলে আপনি আরো কয়েকটি বিষয় নিয়ে চিন্তা করুন।

উদাহরণস্বরুপ, আপনার ব্যবসাটিকে কিভাবে ইউনিক করা যায়, পণ্য বা সেবা কিভাবে গ্রাহকদের নিকট সহজেই পৌঁছে দেওয়া যায় ইত্যাদি।     

২. ব্যবসা পরিকল্পনা তৈরি করেছেন?

উদ্যোক্তা হিসেবে আত্নপ্রকাশ করতে হলে ব্যবসার প্রারম্ভে আপনাকে একটি সুনির্দিষ্ট ব্যবসার পরিকল্পনা তৈরি করতে হবে।

এক্ষেত্রে (Business Plan) ব্যবসা পরিকল্পনায় আপনার ব্যবসার মূল কাজ কি হবে, আপনার কারখানাটি কোথায় স্থাপন করবেন, কীভাবে অর্থোপার্জন করবেন, কেন গ্রাহকরা আপনার পণ্য বা সেবার বিনিময়ে অর্থ প্রদান করবে ইত্যাদি বিষয় গুলো বিশদ বিবরণ সহকারে উল্লেখ করতে হবে।

তাছাড়াও আপনার ব্যবসার ধারণাটি কোথা থেকে এসেছে, কীভাবে আপনার ব্যবসাটিকে ইউনিক করবেন, আপনার ব্যবসার লক্ষ্য কী, বাজারে আপনার প্রধান প্রতিযোগী কারা ইত্যাদি বিষয় গুলোও পরিকল্পনায় উল্লেখ থাকতে হবে।

পাশাপাশি আপনার ব্যবসার প্রধান গ্রাহক কারা হবে, আয় ব্যয়ের হিসাব কীভাবে পরিচালনা করবেন তাও পরিকল্পনায় যুক্ত করতে পারেন।

পড়ুন – যেভাবে অপরিচিত পণ্যের মার্কেটিং করবেন

৩. আপনি কি অর্থনৈতিক ভাবে প্রস্তুত?

একজন উদ্যোক্তা হিসেবে ব্যবসা শুরু করলে আপনাকে পূর্বের চাকুরী ত্যাগ করতে হবে। এর ফলে আপনি মাসিক বেতনের নিশ্চয়তা হারাবেন। অধিকন্তু আপনাকে আপনার সঞ্চিত অর্থ ব্যয় করে ব্যবসায় বিনিয়োগ করতে হবে।

পাশাপাশি আপনাকে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে ঋণ গ্রহণ করতে হতে পারে। তাই আপনাকে সব গুলো বিষয় বিবেচনা করে আপনি আর্থিক ভাবে প্রস্তুত কিনা সে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হবে।

৪. সকল কাগজপত্র ও অনুমতি সংগ্রহ করেছেন?

একটি ব্যবসা শুরু করতে হলে সংশ্লিষ্ট দেশের আইন মেনে প্রয়োজনীয় লাইসেন্স, ছাড়পত্র ও অন্যান্য কাগজপত্র সংগ্রহ করতে হয়। এক্ষেত্রে ব্যবসা শুরুর আগে আপনাকে প্রয়োজনীয় সকল ডকুমেন্ট সংগ্রহ করতে হবে।

৫. আপনি কি ব্যবসাটি পরিচালনা করতে পারবেন?

ব্যবসার মালিক হিসেবে যাবতীয় সকল প্রকার দায়-দায়িত্ব আপনার। সেক্ষেত্রে ব্যবসার সকল চ্যালেঞ্জ আপনাকেই মোকাবেলা করতে হবে। ব্যবসার যাবতীয় সমস্ত কিছু আপনাকেই পরিচালনা করতে হবে। তাই আপনি সমস্ত কিছু পরিচালনা করতে সক্ষম কিনা তা যাচাই করে নিন।