উদ্যোক্তা হতে চান? কিন্তু কেন উদ্যোক্তা হবেন

উদ্যোক্তা হতে চান? কিন্তু কেন উদ্যোক্তা হবেন

উদ্যোক্তা হতে চান

উদ্যোক্তা হতে চান?

উদ্যোক্তা হিসেবে নিজের ব্যবসা শুরু করা যে কোন কারো কাছেই একটি উত্তেজনাপূর্ণ বিষয় হতে পারে। এটি একটি স্বাধীন পেশা। তবে নানা প্রতিকূলতা ডিঙিয়ে উদ্যোক্তা হিসেবে ব্যবসা শুরু করা খুবই কঠিন। কিন্তু এর অনেক সুবিধা রয়েছে। এখানে আমরা উদ্যোক্তা হওয়ার সুবিধা গুলো সম্পর্কে আলোচনা করবো। নিচে তা বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

১. উদ্যোক্তা হিসেবে নিজের ব্যবসা শুরু করলে অন্য কোন চাকুরী করতে হবে না। অর্থাৎ আপনাকে অন্য কারো অধীনে থেকে কাজ করতে হবে না। এক্ষেত্রে আপনার নিয়ন্ত্রণ আপনার নিজের হাতেই ন্যস্ত থাকবে। তাছাড়া ব্যবসা শুরু করার পর আপনি নিজের পছন্দ মতো গ্রাহক নির্বাচন করার পাশাপাশি দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে অবদান রাখতে পারবেন।

পড়ুন – উদ্যোক্তা কি? উদ্যোক্তা সম্পর্কে বিস্তারিত ধারনা

২. একজন উদ্যোক্তা হিসেবে আপনি আপনার নিজের পছন্দ মতো সময়সূচী নির্ধারণ করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনি পরিবারের সদস্যদেরকে তাদের ইচ্ছে অনুযায়ী সময় দিতে পারবেন। যা বেশির ভাগ চাকুরীজীবীই পারে না।

৩. একজন উদ্যোক্তা হিসেবে নিজের ব্যবসা শুরু করলে আপনি চাইলেই যে কোন সময় যে কোন ঝুকিঁ গ্রহণ করতে পারবেন।

৪. উদ্যোক্তারা যে কোন প্রতিকূলতা কাটিয়ে উঠতে বিভিন্ন ধরনের চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করতে পারে।

৫. উদ্যোক্তা হিসেবে নিজের ব্যবসা শুরু করলে আপনি বিভিন্ন ভাবে নিজের ব্যক্তিত্বকে বিকশিত করার সুযোগ পাবেন।

৬. একজন উদ্যোক্তা হিসেবে নিজের ব্যবসা শুরু করে আপনি নির্দিষ্ট লক্ষ্য নির্ধারণ করে অগ্রসর হতে পারবেন।

৭. একজন উদ্যোক্তা শূন্য থেকে নতুন কিছু করার দক্ষতা অর্জন করতে পারেন।

৮. একজন উদ্যোক্তা ধীরে ধীরে সৃজনশীল ও উদ্ভাবনী দক্ষতা অর্জন করতে পারেন।

৯. একজন উদ্যোক্তা হয়ে উঠতে পারলে আপনি নিজের মতো করে সফলতাকে সংজ্ঞায়িত করতে পারবেন।

১০. উদ্যোক্তারা চাইলেই যে কোন সুযোগ যে কোন সময় কাজে লাগাতে পারে। কিন্তু চাকুরীজীবীরা চাইলেই যে কোন সুযোগ কাজে লাগাতে পারে না। তাদেরকে সুযোগ কাজে লাগানোর জন্য বসের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় থাকতে হয়।

১১. উদ্যোক্তারা অন্যদের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করে দেয়।

জেনে নিন – সাইড ব্যবসার ধারনা 

১২. একজন উদ্যোক্তা হিসেবে ব্যবসা শুরু করার পর আপনি আপনার প্রতিষ্ঠানে চাইলেই নিজস্ব সংস্কৃতি চালু করতে পারবেন।

১৩. একজন উদ্যোক্তা হিসেবে আত্নপ্রকাশ করার মাধ্যমে আপনি একটি সুন্দর ক্যারিয়ার গঠন করতে পারবেন।

১৪. একজন উদ্যোক্তা হিসেবে নিজের ব্যবসা শুরু করতে পারলে আপনি অন্যান্য বড় বড় সফল উদ্যোক্তাদের সাথে কথোপকথনের সুযোগ পেতে পারেন।

১৫. একজন উদ্যোক্তা কোম্পানীর সর্বোচ্চ নেতা হিসেবে নিয়োগ প্রাপ্ত অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীদেরকে প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকেন।

১৬. একজন উদ্যোক্তা হয়ে উঠতে পারা আত্নবিশ্বাস অর্জনের সবচেয়ে মোক্ষম সুযোগ।

১৭. একজন উদ্যোক্তা হিসেবে ব্যবসা শুরু করলে যে কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে আপনার নিজের পছন্দকে প্রাধান্য দিতে পারবেন।

১৮. একজন উদ্যোক্তা চাইলেই নমনীয় সময়সূচী অনুসরণ করতে পারেন বিধায় খুব বেশি ক্লান্তি অনুভব করেন না।

১৯. একজন উদ্যোক্তা হিসেবে আত্নপ্রকাশের পর আপনি প্রতিনিয়ত নতুন নতুন বিষয় জানতে ও শিখতে পারবেন।

২০. উদ্যোক্তারা সাধারণত নিজের প্রতিষ্ঠানের যে কোন সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে একক ক্ষমতা প্রাপ্ত হয়ে থাকেন। এক্ষেত্রে কাউকে কোন কিছু জিজ্ঞাসা করারও প্রয়োজন হবে না।

২১. উদ্যোক্তারা চাইলেই প্রতিদিন ছুটি কাটাতে পারে।

২২. উদ্যোক্তারা তাদের নিজেদের ব্যবসার সফলতা বা ব্যর্থতার জন্য নিজেরাই দায়ী।

২৩. উদ্যোক্তারা তাদের নিজেদের ইচ্ছে মতো অফিস সাজাতে পারেন।