যে ৯টি গুনাবলী উদ্দ্যোক্তার সাফল্য বয়ে আনে

যে ৯টি গুনাবলী উদ্দ্যোক্তার সাফল্য বয়ে আনে

যে ৯টি গুনাবলী উদ্দ্যোক্তার সাফল্য বয়ে আনে

যে ৯টি গুনাবলী উদ্দ্যোক্তার সাফল্য বয়ে আনে

উদ্দ্যোক্তা হওয়ার মিছিলে স্বাগতম। উদ্দ্যোক্তা হতে হলে কিছু গুনাবলী অবশ্যই থাকতে হবে। তার মধ্যে এই ৯টি গুনাবলী উদ্দ্যোক্তার সাফল্য বয়ে আনে।

পরিবর্তন প্রত্যাশী উদ্দ্যোক্তার সাফল্য বয়ে আনে

পরিবর্তন প্রত্যাশী একজন উদ্দ্যোক্ততা নিজের সিদ্ধান্তের প্রতি অটল থেকে দক্ষতার সঙ্গে কাজ করে। সব সময় ইতিবাচক পরিবর্তনের স্বপ্ন দেখে যা তাকে নিদৃষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাতে সহায়তা করে। পরিবর্তন বা উন্নয়ন প্রত্যাশিরা চ্যালেঞ্জ গ্রহণে প্রস্থুত।

আত্মবিশ্বাশের বলীয়ান উদ্দ্যোক্তার সাফল্য বয়ে আনে

আত্মবিশ্বাস হচ্ছে নিজস্ব দক্ষতা, কলা, কৌশল ও বিশ্বাসের উপর দৃঢ় থাকা। কোন কাজ সম্পাদনে নিজের উপর আস্থা রেখে অগ্রসর হওয়া।

মানুষ আত্মবিশ্বাসী হয়ে জম্মায় না। মানুষ চেষ্টা করলে আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠতে পারে। ইতিবাচক চিন্তা ও সক্রিয় ভুমিকা পালনে আত্মবিশ্বাস বেড়ে যায়।

ঝুঁকি গ্রহণ উদ্দ্যোক্তার সাফল্য বয়ে আনে

উদ্দ্যোক্তার সহনীয় ক্ষমতা অনুযায়ী ঝুঁকি গ্রহনের মানসিকতা থাকা আত্মবিশ্বাসীরা ঝুঁকি নিতে পিছ পা হয় না। ভুল ত্রুটি শুধরে নেন। অন্যের পরামর্শ গ্রহণ করেন।

সম্ভাব্য লাভ দেখলেই কাজে ঝুঁিক গ্রহণ করেন। ঝুঁকি আগেই নিরুপন করে তার মোকাবেলা করার কৌশল স্থির করা। ঝুঁিককে জয় করতে পারলে সাফল্য নিশ্চিত।

ইতিবাচক মনোভাব উদ্দ্যোক্তার সাফল্য বয়ে আনে

ইতি বাচক মনোভাব নিয়ে জীবন পরিচালনা। নেতিবাচক দৃষ্টি ভঙ্গী ক্ষতিগ্রস্থ করে। সব কিছুতেই ইতিবাচক খোঁজা। নেতিবাচক চিন্তা দূর করা।

যে কাজে উৎসাহ থাকে, যে কাজ মনের মতো সেই কাজে নিজেকে নিয়োজিত করা। শুধুমাত্র মনোভাব পারে জীবনকে ১০০% পরিপূণ করতে।

নতুনত্ব খোঁজা উদ্দ্যোক্তার সাফল্য বয়ে আনে

পুরাতনকে আকড়ে না ধরে নতুনত্ব খোঁজা। অতীতের ভ’ল থেকে শিক্ষা গ্রহণ । ভুলের পূনরাবৃত্তি না করা। লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য প্রয়োজনে যুক্তিসংগত ও বিকল্প পদক্ষেপ গ্রহণ করা।

পরিশ্রমে ভয় না পাওয়া

সংসারে অসংখ্য কাজের মাধ্যমে বাড়তি শ্রমের বিনিময়ে বাড়তি আয় করতে আগ্রহীদের উদ্দ্যোক্তা হিসাবে চিহ্নিত করা। যাহারা নিজস্ব ভাবে আয় করতে আগ্রহী যাহা পারিবারিক সমস্যা, অসুস্থতা বা যে কোন ধরনের দূর্যোগ মোকাবেলা অত্যান্ত জরুরী।

সম্পদ ও সুযোগের সদব্যবহার উদ্দ্যোক্তার সাফল্য বয়ে আনে

দেশী বিদেশী বা সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণ বা অন্যান্য সুযোগ সুবিধা গ্রহনের মাধ্যমে উপার্জনকারী কর্ম পরিচালনা করা। এক্ষেত্রে ব্যক্তিগত বা দলগত ভাবে করা যায়।

লাভ লোকসান মেনে নেওয়া

প্রতিটি কাজের ভাল বা মন্দ রয়েছে। ব্যবসায়ের ক্ষেত্রে লাভ লোকসান মেনে নেয়া। লোকসান বা ক্ষতি হলে হতাশ হলে চলবে না। শিক্ষা নিয়ে নতুন ভাবে শুরু করা।

পূনঃরায় উদ্দ্যোগ গ্রহণ

একটি ব্যবসা শেষ হলে অন্য একািট উদ্দ্যোগ গ্রহনে বিলম্ব না করা। এক্ষেত্রে ব্যবসায় আরো কি ভাবে অগ্রগতি আনা যায় তা ভাবা। সব ধরনের অপচয় ও অতিরিক্ত ব্যয় সংকোচন করা।