যোগ্যতা থাকা সত্বেও ইন্টারভিউর জন্য যে ৫ টি কারনে আপনাকে ডাকা না হতে পারে

ইন্টারভিউর জন্য যে ৫ টি কারনে আপনাকে ডাকা না হতে পারে

ইন্টারভিউর জন্য যে ৫ টি কারনে আপনাকে ডাকা না হতে পারে

ইন্টারভিউর জন্য যে ৫ টি কারনে আপনাকে ডাকা না হতে পারে

প্রতিযোগীতা পূর্ণ এই দুনিয়ায় কর্মজীবন (চাকরি) শুরু করতে হলে অবশ্যই সংশ্লিষ্ট পদ গুলোতে আবেদন করতে হয়। আর আবেদনের পর সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ তা যাচাই বাছাইয়ের পর উপযুক্ত প্রার্থীদেরকেই ইন্টারভিউতে ডাকে। কাজে যোগদান করতে হলে প্রার্থীদেরকে অবশ্যই ইন্টারভিউয়ের বা মৌখিক পরীক্ষার মুখোমুখি হতে হয়।

কিন্তু আপনি কোন পদের জন্য উপযুক্ত হলেও বিভিন্ন কারণে আপনাকে ইন্টারভিউতে না ডাকা হতে পারে। যে সব কারণে আপনাকে ইন্টারভিউর জন্য ডাকা না হতে পারে নিচে সে সব কারণ সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

ফাইল সার্পোট না করা বা না খোলার কারণে

বর্তমানে বেশির ভাগ আবেদনই অনলাইনের মাধ্যমে পাঠানো হয়। তাই আবেদনটি যে ফরম্যাটে পাঠানো হয় তা যেন নিয়োগ কর্তার কম্পিউটারে সার্পোট করে তা নিশ্চিত করা জরুরী।

আপনার আবেদনটি যদি কোন নতুন সফটওয়ার বা যে ফরম্যাট গুলো সচরাচর ব্যবহার করা হয় না এমন ফরম্যাটে পাঠানো হয় তাহলে তা নিয়োগ কর্তার কম্পিউটারে সাপোর্ট করবে না। ফলে আপনার আবেদনটি বাদ হয়ে যাবে। তাই অনলাইনে আবেদন করার আগে কোন ফরম্যাটে আবেদন করতে বলা হয়েছে তা দেখে নিন।

কোন নির্দিষ্ট কর্মকর্তাকে উল্লেখ করার কারণে

কোন চাকুরীর আবেদনপএ যদি মনগড়া কোন নির্দিষ্ট ব্যক্তি বা পদ বরাবর লিখা হয় তাহলে তা বাতিল হওয়ার সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি। তাই মনগড়া নির্দিষ্ট ব্যক্তি বা পদ বরাবর আবেদনপএ না লিখে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখিত পদ বা ব্যক্তি বরাবর আবেদন করতে হবে। এতে আবেদনপএ বাতিল হওয়ার কোন সম্ভাবনা কমে যায়।

সকল নির্দেশনা না মানার কারণে

মনে করুন কোন একটি চাকুরীর বিজ্ঞপ্তিতে সিভি, কভার লেটার ও কাজের দুটি স্যাম্পলের কথা বলা হয়েছে। এক্ষেএে আপনি যদি দুটি স্যাম্পলের পরিবর্তে অন্য কোন তথ্য উপস্থাপন করেন তাহলে আপনার আবেদন পএটি গ্রহণযোগ্য হবে না। তাই নিয়োগ কর্তার চাহিদা মতো আবেদন পএের সাথে যা যা সংযোজন করা দরকার তাই সংযোজিত করুন। আরো পড়ুন – ইন্টারভিউ আগে যে ৫টি খাবার খাবেন না

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অসংযত উপস্থিতির কারণে

বর্তমানে বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠান চাকুরী প্রার্থীর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের উপস্থিতি বিবেচনা করে থাকে। এক্ষেএে চাকুরী প্রার্থীর ফেসবুক পোস্ট ও বন্ধু, টুইটার, ইন্সটাগ্রাম ইত্যাদি অ্যাকাউন্ট যাচাই বাছাই করা হয়ে থাকে। চাকুরী প্রার্থীর অনলাইন উপস্থিতি যদি সংযত মনে না হয় তাহলে তাকে ইন্টারভিউতে ডাকার সম্ভাবনা নেই। তাই অনলাইনে আপনার সংযত উপস্থিতি নিশ্চিত করুন।

সার্চে নেতিবাচক তথ্যের কারণে

অনেক প্রতিষ্ঠানই প্রার্থী নিয়োগ করার পূর্বে সার্চ ইঞ্জিনের সাহায্যে প্রার্থী সম্পর্কে পর্যাপ্ত তথ্য পেতে চায়। আর সার্চ ইঞ্জিনে যদি কোন নেতিবাচক তথ্য পাওয়া যায় তাহলে নিয়োগকর্তারা তা গুরুত্বের সাথে বিবেচনায় নিয়ে থাকেন। তাই গুগল সার্চ ইঞ্জিনে আপনার সম্পর্কে কোন তথ্য থাকলে আবেদনের পূর্বেই তা যাচাই বাছাই করে নিন।