কেন ইংরেজীতে অনার্স করবেন এবং কোথায় চাকুরী পেতে পারেন

কেন ইংরেজীতে অনার্স করবেন

কেন ইংরেজীতে অনার্স করবেন এবং কোথায় চাকুরী পেতে পারেন

কেন ইংরেজীতে অনার্স করবেন এবং কোথায় চাকুরী পেতে পারেন

জ্ঞান বিজ্ঞানের উৎকর্ষতার এই যুগে আন্তর্জাতিক ভাষা হিসেবে ইংরেজী জানা আবশ্যক। তাছাড়া শেক্সপিয়র, অস্টিন, ফকনার এর মতো বিখ্যাত ব্যক্তিদেরকে আপনার জীবনের প্রতিদিনের অংশ করে নিতে উচ্চ শিক্ষার বিষয় হিসেবে ইংরেজীকে বিবেচনা করতে পারেন।

অনার্সে পড়ার জন্য এটি একটি আদর্শ সাবজেক্ট হতে পারে। বিশ্বায়নের এই যুগে এটি আপনাকে ব্যক্তিগত ও পেশাদারী পরিপূর্ণতা প্রদান করতে পারে। ইংরেজীর দক্ষতা আপনার ব্যক্তিগত জীবনের সাথে কর্মজীবনের মূল্যবান যোগসূত্র তৈরি করতে সহায়তা করতে পারে। আমরা এখানে কেনো ইংরেজীতে অনার্স করবেন সে বিষয়ে আলোচনা করব। আশা করি এটি আপনার জন্য সহায়ক হবে।

কেনো ইংরেজীতে অনার্স করবেন?

ইংরেজীতে অনার্স করার ৬ টি বড় কারণ রয়েছে। নিচে তা বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

সংকটপূর্ণ চিন্তাভাবনার দক্ষতা অর্জনে অপরিহার্য: ইংরেজীর দক্ষতা আপনাকে সৃজনশীল চিন্তা ভাবনা শিক্ষা দিতে পারে। তাাছাড়া এটি যে কোন সমস্যার সমাধানে যে কাউকে যে কোন প্রশ্ন করতে আপনাকে সহায়তা করতে পারে।

বিকল্প দৃষ্টিকোন গুলো সনাক্ত সম্মান করার দক্ষতা অর্জনে: যারা ইংরেজীতে অনার্স করেন তারা কবিতা, নাটক, উপন্যাস ও নিবন্ধ গুলো পাঠ করার কারণে বিপরীত যুক্তি গুলো শিখতে পারেন। অর্থাৎ ইংরেজী সাহিত্য অধ্যয়নের ফলে নিরপেক্ষ হওয়া যেতে পারে।

প্রয়াস, বলা লেখার শক্তি অর্জনে: চাকুরী ক্ষেত্রে নিয়োগ কর্তারা এমন কাউকে চান যারা পরিষ্কার ও সংক্ষিপ্ত ভাবে বার্তা প্রদান করতে পারেন। সাধারণত যারা ইংরেজীতে অনার্স করেন তারা ক্লাসের আলোচনা ও লিখিত এসাইনমেন্টের মাধ্যমে এই সকল প্রয়াসের সবচেয়ে কার্যকর কৌশল গুলো শিখতে পারেন।

অমূল্য অর্ন্তদৃষ্টি: ইংরেজী সাহিত্যে সমাজবিজ্ঞান, ইতিহাস , দর্শন ও ধর্মতত্ত্ব অর্ন্তভুক্ত রয়েছে। যা আমাদেরকে প্রশ্ন করতে ও সমসাময়িক সংস্কৃতি গুলো বুঝতে সহায়তা করে থাকে। আর এই সব সাহিত্যের চারিত্রিক অর্ন্তদৃষ্টি গুলো গ্রাহক কী, রোগী বা ছাত্রদের জীবনকে আরো ভালো করে গড়ে তুলতে কী প্রয়োজন তা বুঝতে সহায়তা করে থাকে।

সুখানুভব: ইংরেজী সাহিত্যে অনার্স করার আকেটি বড় কারণ হলো সুখ অনুভব করা। এই অনুভূতি গুলো পড়া ও আলোচনা থেকে তৈরি হয় যা আপনাকে এমনকি হাসঁতে বা কাদাঁতে পারে। ইংরেজীতে অনার্স করার ফলে আপনি নিজেকে ও অন্যদেরকে সহজেই বুঝতে পারবেন। তাছাড়া ইংরেজীতে অনার্স করার ফলে আপনার ব্যক্তিগত জীবনের চাপ গুলো কমে যেতে পারে।

আরো পড়ুনঃ স্বল্প পুজিঁর কিছু সহজ ব্যবসার ধারণা

যোগাযোগ দক্ষতা অর্জন: বিজ্ঞানের প্রসারের ফলে ব্যবসা বাণিজ্য গুলো এখন পুরোপুরি বৈশি^ক হয়ে উঠছে। তাছাড়া বিভিন্ন দেশ ও সংস্কৃতির মানুষের সাথে রাষ্ট্রীয় ও ব্যক্তিগত সম্পর্ক তৈরির ফলেও আমরা অনেক বেশি আধুনিক হওয়ার কৌশল ও দক্ষতা অর্জন করেছে। আর বাণিজ্যিক, রাষ্ট্রীয় ও ব্যক্তিগত সম্পর্ক বজায় রাখতে হলে যোগাযোগ অত্যাবশ্যক। আর যোগাযোগ রক্ষার জন্য আন্তর্জাতিক ভাষা হিসেবে আমাদেরকে ইংরেজীতে পারদর্শী হতেই হবে। আর এ জন্য ইংরেজীতে অনার্স করার বিকল্প নেই।

ইংরেজীতে অনার্স করার যোগ্যতা

ইংরেজীতে অনার্স করতে হলে শিক্ষার্থীদেরকে অবশ্যই দ্বাদশ শ্রেণীতে উত্তীর্ণ হতে হবে। পাশাপাশি ৬৫% মার্ক থাকতে হবে। তাছাড়া ইংরেজী অনার্সের ভর্তি পরীক্ষায়ও উত্তীর্ণ হতে হবে।

কোথায় চাকুরী পেতে পারেন?

আধুনিকতার এই যুগে ইংরেজীর গুরুত্ব খুব বেশি। বিশেষ করে ভালো কোন চাকুরী পেতে হলে ইংরেজী জানতেই হবে। ইংরেজীতে অনার্স শেষ করে যে কেউ যে কোন স্কুলের শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পেতে পারেন। পাশাপাশি মাষ্টার্স শেষ করে কলেজের অধ্যাপক হিসেবেও যোগদান করতে পারবেন। তাছাড়া বিভিন্ন বহুজাতিক কোম্পানীতে বড় বড় পদে চাকুরীর বহু সুযোগ রয়েছে। তাছাড়া বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারলে সরকারী চাকুরীতে প্রথম শ্রেণীর কর্মকর্তা হিসেবেও যোগদান করা যেতে পারে।

সর্বোপরি বলা যায় যে, ভালো ভাবে পড়াশোনা করে ভালো রেজাল্ট করতে পারলে এবং ইংরেজীতে ভালো দক্ষতা অর্জন করতে পারলে চাকুরীর বাজারে নিজেকে এগিয়ে রাখতে পারবেন।