আয়ের চেয়ে ব্যয় কম করুন

আয়ের চেয়ে ব্যয় কম করুন

আয়ের চেয়ে ব্যয় কম করুন

আয়ের চেয়ে ব্যয় কম করুন

সম্পদশালী হতে হলে আপনাকে আয় বুজে ব্যয় করতে হবে। এর চেয়ে বড় কথা আয়ের চেয়ে ব্যয় কম করতে হবে। আপনার আয়ের চেয়ে ব্যয় যত কম হবে তত টাকা আপনার কাছে জমা থাকবে। এই টাকাটাই আপনি বিনিয়োগ করতে পারবেন।

 

সত্যি বলতে কি আপনি কত দিনে আর্থিক স্বাধীনতা অর্জন করবেন তা নির্ভর করে আপনি কত টাকা আয় করছেন এবং কত টাকা জমা করছেন এবং কত টাকা কোথায় বিনিয়োগ করছেন এর উপর।

 

আমার দূর সম্পর্কের দুই চাচা আছেন, যারা একই প্রাইভেট কোম্পানিতে, একই পোষ্টে, একই বেতনে কাজ করে একজন ঢাকাতে বাড়ি বানিয়েছে আরেকজন এখনও সেই পুরাতন বাসায় ভাড়া থাকে।

 

এই বিষয়টি যখন আমি খেয়াল করলাম তখন বুজতে পারলাম আমার এই দুই চাচার মধ্যে খরচের বড় পার্থক্য রয়েছে। যেই চাচা এখনও পুরাতন বাসায় ভাড়া থাকে তার হাত খরচে যত টাকা খরচ হয় সেই টাকা দিয়ে অন্য চাচার মাসিক বাজারের খরচ চলে যায়। অর্থাৎ এই দুইজন ব্যক্তি একই টাকা আয় করলেও তাদের খরচের রাস্তা সম্পূর্ণ ভিন্ন এবং এই ভিন্নতার কারনেই একজন এখন বাড়ির মালিক এবং আরেকজন ভাড়াটিয়া।   

 

আয়ের চেয়ে ব্যয় কম কমাতে চাইলে আপনাকে আরো আয় করার পথ খুঁজে বের করতে হবে। বিশেষ ভাবে একটি আয়ের পথ দিয়ে ব্যয় কমানো সত্যি চ্যালেঞ্জিং।

 

ধরুন আপনার যদি ৩টি আয়ের পথ থাকে তবে আপনি ৩ দিকে এই টাকা খরচ করতে পারবেন। একটি আয়ের মাধ্যম দিয়ে থাকা খাওয়া, আরেকটি দিয়ে যাবতীয় সকল খরচ এবং আরকেটি থেকে প্রাপ্ত টাকা সম্পূর্ণ জমাতে পারবেন।

 

তবে সমস্যা হচ্ছে এই ৩টি আয়ের পথ বানানো। বিশেষভাবে প্রাথমিক অবস্থায় টাকা জমানো বেশ কঠিন হয়ে যায়। তবে এই ক্ষেএে কিছু পদক্ষেপ নিতে পারলে আপনি খুব সহজেই আয়ের চেয়ে ব্যয় কমাতে পারবেন। পড়ুন – আয়ের একাধিক রাস্তা বানাতেই হবে

 

যেমন ধরুন, আপনার খরচের খাতগুলো কি তা বিস্তারিত ভাবে জানুন। কোথায় কত টাকা খরচ হচ্ছে তা জানতে হবে এবং লিখে রাখতে হবে। মাস শেষে মিলিয়ে নিতে হবে কোথায় আপনি অতিরিক্ত খরচ করেছেন এবং পরবর্তী মাস থেকে সেই খরচকে না বলে দিন।

 

আপনাকে খরচের আগে ঠিক করতে হবে আপনি কত টাকা জমাবেন। যখনই আপনার হাতে টাকা আসবে তখনই আগে জমানোর জন্য তুলে রাখুন এবং এর পরে যা থাকে তাই দিয়ে চলুন। আপনাকে মনে রাখতে হবে আজকের এই কষ্ট আপনাকে পরবর্তীতে সুখ দিবে।

কে এম চিশতি সিয়াম // ইউটিউব লিঙ্ক 

আরো পড়ুন –