অর্থ সম্পর্কিত ৮ টি প্রয়োজনীয় পরামর্শ

অর্থ সম্পর্কিত ৮ টি প্রয়োজনীয় পরামর্শ

অর্থ সম্পর্কিত ৮ টি প্রয়োজনীয় পরামর্শ

অর্থ সম্পর্কিত ৮ টি প্রয়োজনীয় পরামর্শ

প্রত্যেকেই নিজ নিজ জীবনে অর্থ বিষয়ক কিছু ভুল করে থাকে। ফলে অপ্রয়োজনীয় খাতে অর্থ খরচ হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হয়। পাশাপাশি অবসরকালীন জীবনের জন্য সঞ্চয় করা দুরূহ হয়ে পড়ে। এই বিষয় গুলো এড়াতে অর্থ বিশেষজ্ঞরা কিছু পরামর্শ দিয়েছেন। আজকে আমরা বিশেষজ্ঞদের পরামর্শের ভিত্তিতে অর্থ সম্পর্কিত কিছু প্রয়োজনীয় কৌশল নিয়ে আলোচনা করব। আশা করছি আপনারা এতে কিছুটা হলেও উপকৃত হবেন।

সঞ্চয় করা শুরু করুন

বেশির ভাগ মানুষই অর্থ সঞ্চয়ের পরিবর্তে খরচ করায় প্রলুব্ধ হয়ে থাকে। কিন্তু সঞ্চয়কে অগ্রাধিকার দেওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর সঞ্চয়ের সবচেয়ে সহজ মাধ্যম হলো স্যালারী অ্যাকাউন্ট থেকে স্বয়ংক্রিয় ভাবে সঞ্চয় অ্যাকাউন্টে টাকা ট্রান্সফার করা। এর ফলে যেহেতু আপনার হাতে টাকা আসবে না সেহেতু আপনি খরচ করার জন্য প্রলুব্ধ হবেন না।

লাইফ স্টাইল মুদ্রাস্ফীতি এড়িয়ে চলুন

আপনার লাইফ স্টাইল যেন মুদ্রাস্ফীতির দিকে ঝুঁকে না পড়ে সে দিকে খেয়াল রাখুন। আর সে জন্য আপনি যখন আপনার সম্পদ বৃদ্ধির লক্ষ্যে উপার্জন করা শুরু করবেন তখন সঞ্চয়ের প্রতি আগ্রহী হওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

আপনি যদি আপনার কর্ম জীবনের শুরুতেই এই জিনিসটি অনুশীলন করা শুরু করতে পারেন তাহলে সঞ্চয়, বিনিয়োগ ও ঋণ পরিশোধের মতো ভালো অভ্যাস গুলোকে সহজেই বিকশিত করতে পারবেন।

অপ্রয়োজনীয় কোন কিছুতে অর্থ নষ্ট করবেন না

আমরা অনেক সময় অপ্রয়োজনীয় জিনিস কিনে শুধু শুধু অর্থ নষ্ট করে থাকি। কিন্তু কিছুতেই এমনটি করা ঠিক নয়। যদি আপনি কর্ম জীবনে প্রবেশের পর প্রথম পেমেন্ট পেয়ে থাকেন তবুও এমনটি করবেন না।

আমরা অনেক সময় পর্যাপ্ত পোশাক থাকার পরও পছন্দ সই পোশাক ক্রয় করতে প্রলুব্ধ হয়ে থাকি। যা নি:সন্দেহে অর্থের অপচয়। তবে অনেক বেশী শখের জিনিসের ক্ষেএে কিছুটা ছাড় দেওয়া যেতে পারে। কারন এতে মানসিক শান্তি পাওয়া যায়।

অন্যকে প্রভাবিত করতে কোন কিছু কিনবেন না

তাৎক্ষণিক প্রয়োজনীয় ব্যয় গুলো আপনার ভবিষ্যত প্রয়োজনীয়তাকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। আমরা সাধারণত অন্যকে প্রভাবিত করতে বা অন্যের উপর রাগ করে তাৎক্ষণিক কোন কিছুর প্রয়োজনীয়তা অনুভব করি। এর ফলে অযথাই আমাদের অর্থ খরচ হয়। তাই এই সব বিষয় এড়িয়ে সঞ্চয়ের প্রতি মনোযোগ দেওয়াই সবচেয়ে উত্তম।

পড়ুন – যে ৮ টি জিনিস টাকার চেয়েও বেশি গুরুত্বপূর্ণ

শেয়ার বাজারকে ভয় করবেন না

আপনার অর্থনৈতিক অবস্থা শক্তিশালী করার জন্য আপনি অনেক পদক্ষেপ নিতে পারেন। এক্ষেএে বেশির ভাগ তরুণ বিনিয়োগকারী শেয়ার মার্কেটে বিনিয়োগ করতে ভয় পায়। অথচ শেয়ার মার্কেটে  ছোট পরিসরে বিনিয়োগ করেও আপনি আপনার অর্থনৈতিক অবস্থার পরিবর্তন করতে পারেন। তাই শেয়ার বাজারকে ভয় না করে এতে বিনিয়োগে আগ্রহী হওয়া উচিত।

আমাদের দেশে শেয়ার বাজার নিয়ে অনেক নেগেটিভ কথা শুনা যায়। প্রায় আপনি শুনবেন শেয়ার মার্কেট ভাল না, অনেক লস হয়, এইটা জুয়া খেলা, ইত্যাদি। কিন্তু আসলেই কি তাই?

যদি  এইসব কথা সত্যি হত তাহলে পাগল ছাড়া কেউ শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করত না। তবে যেকোন ব্যবসার চেয়ে শেয়ার বাজারে ঝুঁকি বেশী, ঠিক তেমনি যেকোন ব্যবসার থেকে লাভও বেশী।

আরো পড়ুন – শেয়ার বাজার সম্পর্কে কিছু ভুল ধরনা

নিজের জন্য বিনিয়োগ করুন

আর্থিক বিনিয়োগের পাশাপাশি নিজের জন্যও বিনিয়োগ করতে হবে। অর্থাৎ বিভিন্ন কিছু শিখে নিজেকে দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে বিনিয়োগ করতে হবে। আর এ জন্য একটি পরিকল্পনা গ্রহণ করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা গ্রহণের মাধ্যমে নিজেকে সহজেই দক্ষতা সম্পন্ন করা সম্ভব।

নিজের কথা শুনুন এবং পদক্ষেপ নিন

আপনি আপনার নিজেকে কোথায় দেখতে চান তা নিয়ে চিন্তা করুন এবং এই লক্ষ্য অর্জনের জন্য সিদ্ধান্ত গ্রহণ করুন। যদি আপনি আপনার লক্ষ্য নির্ধারণ করতে পারেন তাহলে সে অনুযায়ী একটি আর্থিক পরিকল্পনাও গ্রহণ করতে পারবেন।

সময় নষ্ট করবেন না

আপনি যা চান তা করার জন্য উপায় খুজেঁ পেতে আপনি ভয় পাবেন না। এক্ষেএে ভয় পেয়ে সময় নষ্ট করা ঠিক নয়। যদি কোন উদ্বেগ কাজ করে তাহলে আপনি আপনার মূল লক্ষ্যের প্রতি ফোকাস করতে পারবেন না।