অন্যের কাছ থেকে সাহায্য নেওয়া মানে আপনি ছোট না

অন্যের কাছ থেকে সাহায্য নেওয়া মানে আপনি ছোট না

অন্যের কাছ থেকে সাহায্য নেওয়া মানে আপনি ছোট না

অন্যের কাছ থেকে সাহায্য নেওয়া মানে আপনি ছোট না

অন্যের কাছ থেকে সাহায্য নেওয়া মানে শুধুমাএ টাকা পয়সা ভিত্তিক সাহায্য বোঝায় না। এটি হতে পারে কেউ আপনাকে বুদ্ধি-পরামর্শ দিয়ে সাহায্য করছে, কেউ আপনাকে শ্রম দিয়ে সাহায্য করছে, কেউ আপনাকে সাহস দিয়ে সাহায্য করছে।

 

আমাদের মধ্যে অনেকই আছি যারা অন্যের কাছ থেকে সাহায্য নিতে চাই না। আমরা এতে মনে করি অন্যের কাছ থেকে সাহায্য নিলে নিজে ছোট হয়ে যাব। যা আসলে আমাদের কাজকে অনেক কঠিন ও কষ্টসাধ্য করে দেয়।

 

এই বিশ্বে সবাই সব বিষয়ে পারদর্শী হয় না। সব বিষয়ে আমাদের দক্ষতা সমান না। আমাদের একে অপরের উপর নির্ভর করতে হয়। একে অপরের উপর নির্ভর করা মানে এই না যে, আপনি বিক্রি হয়ে গেছেন। 

 

ধরুন আপনি একটি ব্যবসা শুরু করতে চান, এখন আপনার কাছে যথেষ্ট মূলধন নেই এবং আপনি ব্যাংক লোনে যেতে চাইছেন না। এই অবস্থায় আপনি পার্টনারশীপে ব্যবসা করতে পারেন। অন্যের সাথে কাঁধে কাধ মিলিয়ে কাজ করলে অনেক কঠিন কাজ সহজেই শেষ করা যায়।

 

যেমন, পার্টনারশীপে ব্যবসা করলে আপনি একজন বিনিয়োগকারী পাচ্ছেন, সেই সাথে ব্যবসার বিভিন্ন কাজ ভাগ করে নিতে পারবেন। ফলে খুব সহজেই ব্যবসাটিকে সফল করতে পারেন। এছাড়া অন্যের কাছ থেকে সাহায্য নেওয়ার বেশ কিছু কারন আছে। আসুন জেনে নেই তেমন ৩টি কারন।

 

আপনি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করছেন

আপনি যখন অন্যের কাছ থেকে সাহায্য নিবেন এর মানে আপনি সেই ব্যক্তিকে শ্রদ্ধা প্রদর্শন করছেন। ফল স্বরুপ তিনিও আপনাকে আর দরকারে আপনার কাছ থেকে সাহায্য নিবে।

যেমন ধরুন, আপনি একটি ব্যবসা শুরু করতে চাচ্ছেন, এখন আপনার পরিচিত ও অভিজ্ঞ একজনের কাছ থেকে সেই ব্যবসাটি সম্পর্কে জানতে চাইলেন।

এতে ঐ ব্যক্তি নিজেকে সন্মানিত মনে করবে এবং আপনাকে যথা সম্ভব তথ্য দিয়ে সাহায্য করতে পারে। এতে আপনার লাভ ছাড়া কোন ক্ষতি হওয়ার কারন নেই। পড়ুন – সবাইকে সন্মান করুন

 

আপনি বিশ্বাস প্রদর্শন করছেন

এই ক্ষেএে আবার আগের উদাহরনে চলে যাই, ধরুন আপনি ব্যবসা শুরু করতে চাচ্ছেন এবং একজনের কাছে ব্যবসাটি সম্পর্কে জানতে চাইলেন।

এতে ঐ ব্যক্তি বুজতে পারনে আপনি তাকে বিশ্বাস করছেন, কেননা তা না হলে আপনি ব্যবসার মত এত গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তার কাছে জানতে চাইতেন না।

ঠিক তেমনি তিনিও তার কাজে আপনাকে বিশ্বাস করবে। এভাবে পরস্পরের মধ্যে মধ্যে বিশ্বাস স্থাপনে লাভ ছাড়া ক্ষতি নেই।

 

আপনি দেখাচ্ছেন আপনি শুনতে ইচ্ছুক

বেশীর ভাগ মানুষই কথা বলতে পছন্দ করে। আপনি যখন কোন কিছুর জন্য কারো কাছে সাহায্য চাইবেন এর মানে আপনি তাকে গুরুত্ব দিচ্ছেন এবং তার কথা শুনতে আপনি ইচ্ছুক।

কে এম চিশতি সিয়াম // ইউটিউব লিঙ্ক 

আরো পড়ুন –